• বিনোদন ডেস্ক
  • ৩০ আগস্ট ২০১৯ ১৫:৩৮:৪৮
  • ৩০ আগস্ট ২০১৯ ১৫:৩৮:৪৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সেই রানুকে নিয়ে হচ্ছে সিনেমা

রানু মণ্ডল। ছবি : সংগৃহীত

প্ল্যাটফর্ম থেকে উঠে এসে হিমেশ রেশমিয়ার স্টুডিয়োতে পৌঁছে যাওয়া রানু মণ্ডলকে নিয়ে আবারো নতুন চমক। নদিয়ার বোগোপাড়ার বাসিন্দা রানুর জীবনযুদ্ধ এ বার উঠে আসবে বড় পর্দায়। সবকিছু ঠিক থাকলে সেপ্টেম্বর মাস থেকেই শুরু হয়ে যাবে সিনেমার কাজ। ছবিটির পরিচালক নবাগত হৃষীকেশ মণ্ডল।

তবে এই পরিকল্পনার পিছনে যার মস্তিষ্ক, তিনি ক্যাকটাসের গায়ক সিদ্ধার্থ রায় ওরফে সিধু। ছবির সঙ্গীত পরিচালকও তিনি। আর ছবিতে একাধিক গান গাইবেন রানু নিজেই। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এই সময়।

বর্তমান মুম্বইয়ে হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে গানের রেকর্ডিংয়ে ব্যস্ত রয়েছেন রানু। সঙ্গে আছেন এই গায়িকাকে তুলে আনার নেপথ্য নায়ক অতীন্দ্র চক্রবর্তী।

এ বিষয়ে অতীন্দ্র বলেন, ‘হ্যাঁ, সিধুদার সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। এখন ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সম্ভবত এখানে থাকতে হবে। ফিরে গিয়ে বিস্তারিত কথা বলব। এখানকার কয়েকজন পরিচালকও এই বিষয়টি নিয়ে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন।’

এদিকে সিধুর বলেন, ‘আমি ওর গান শুনেছি। বেশ ভালো গাইছেন। তার চেয়েও বড় কথা হিমেশ রেশমিয়া রানুদিকে একটা সুযোগ দিয়েছেন। ফলে এটা আশা করা যেতেই পারে আগামী ছ’মাস অন্তত এই ক্রেজটা থাকবে। এই সময়ের মধ্যে তিনি এই ধারাটা বজায় রাখলে অবশ্যই তা গানের জন্য ভালো খবর।’

এ প্রসঙ্গে পরিচালক হৃষীকেশ বলেন, ‘ছবিতে রানুর চরিত্রে অভিনয় করার জন্য টলিউডের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এক অভিনেত্রীর সঙ্গে একদম প্রাথমিক পর্যায়ে কথা বলেছি। এই ছবিতে মূল চরিত্র বলতে তো দু’জন। রানু আর অতীন্দ্র। ওই রোলের জন্যও একজনকে বাছাই করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আপাতত ছবির নাম ভাবা হয়েছে, ‘প্লাটফর্ম সিঙ্গার রানু মণ্ডল’। আগে এক মহিলা ফুটবলারের জীবনী নিয়ে ‘কুসুমিতার কথা’ নামে একটি সিনেমা তৈরি করেছি। ছবিটি শুরু হবে সাংবাদিকদের সামনে রানু সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন সেই দৃশ্য দিয়ে। আশা করছি অনুমতি পেতে সমস্যা হবে না।’

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন আগে স্বামীর সঙ্গে কাজের সন্ধানে মুম্বই গিয়েছিলেন রানু। অভিনেতা ফিরোজ খানের বাড়িতে তিনি কাজও করতেন। সেখানে থাকার সূত্রে হিন্দি বলা এবং শব্দ উচ্চারণে দক্ষতা অর্জন করেন। তারপর নদিয়াতে ফিরে আসার কিছুদিন পর স্বামী চলে যান। বিয়েও হয়ে যায় মেয়েদের।

নিজের খালা-খালু একা হয়ে যাওয়া রানুকে নিজেদের বাড়িটি দিয়ে দেন। কিন্তু থাকার জায়গা হলেও খাবেন কী? অতএব রানু খাবারের সন্ধানে রোজ হাজির হওয়া শুরু করেন রানাঘাট স্টেশনের পাঁচ নম্বর প্ল্যাটফর্মে।

এ বছর ২৭ জুলাই ওই প্ল্যাটফর্মে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতে গিয়ে অতীন্দ্র নিজের মোবাইলে রেকর্ড করেন রানুর কণ্ঠে লতার গান। সোশ্যাল মিডিয়ায় তা পোস্ট করা হয়। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় সেই ভিডিও। আর ফিরে তাকাতে হয়নি এই ফুটপাথের গায়িকাকে।

বাংলা/এনএস

সংশ্লিষ্ট বিষয়

সিনেমা রানু মণ্ডল

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0532 seconds.