• ০৪ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:১২:৫৯
  • ০৪ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:১২:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

চবিতে হয় পড়ব, না হয় মরব

ছবি: সংগৃহীত

চবি প্রতিনিধি :

‘চবিতে হয় পড়ব, না হয় মরব’ সহ নানা স্লোগান সম্বলিত ব্যানার হাতে নিয়ে মানববন্ধন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীরা। ২০১৮ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) আবেদনের যোগ্যতা থাকার পরও ২০১৯ সালে মানোন্নয়নের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করে এসব শিক্ষার্থী। পরে তারা ভর্তি পরীক্ষায় অংশে নিয়ে উত্তীর্ণও হয়। 

কিন্তু প্রশাসন বলছে তারা ভর্তি হতে পারবে না। পূর্বে যোগ্যতা থাকায় এ বছর তারা অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত। তবে শিক্ষার্থীদের দাবি, আবেদন প্রক্রিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিষয়টি স্পষ্ট করেনি। তাই ভর্তির দাবিতে মানববন্ধন করেন তারা। একই দাবিতে প্রক্টরের মাধ্যমে উপাচার্য বরাবর দরখাস্তও দিয়েছে তারা। অস্পষ্ট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ও ডিনদের দুর্বলতায় পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিল এই ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। 

৪ নভেম্বর, সোমবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে আন্দোলন শুরু করে। পরে বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন করেন তারা।

এসময় তাদের হাতে ‘কাঁদতে আসিনি, যোগ্যতা নিয়ে ভর্তি হতে এসেছি’, ‘গত বছরের যোগ্যরা এবার মান উন্নয়ন দিলে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে না সার্কুলারে উল্লেখ নাই’, ‘ভুল আইসিটি সেলের,  ভবিষ্যৎ নষ্ট আমাদের কেন?’, ‘আমাদের মেধা, পরিশ্রম, সময়, টাকার কেন মূল্য নেই? চবিতে হয় পড়ব, না হয় মরব’, ‘একটি বছর বইয়ের মধ্যে মুখ গুঁজিয়ে ছিলাম, এই দিনটি দেখার জন্য নয়’, ‘হয় ভর্তি নিন না হয় চবির মাটিতে কবর খোঁড়ার প্রস্তুতি নিন’ লেখা সংবলিত প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। 

এসময় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ইমাম হোসেন হৃদয় বলেন, সার্কুলারে স্পষ্টভাবে বিষয়টা ছিল না। আমরা যখন আবেদন করলাম তখন আমাদের যোগ্য বলা হল, এডমিট কার্ডও দিল, পরীক্ষায় অংশ নিতে দিল, রেজাল্টও দিল আমাদের কিন্তু এখন বলছে ভর্তি হতে দিবে না।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, আন্দোলনকারীরা আমাদের কাছে এসেছিল। আমরা তাদের  জানিয়েছি, এই বিষয়ে ডিন কমিটি মিটিংয়ে বসেছে। তারা সিদ্ধান্ত নিবে।

এছাড়াও আন্দোলনকারীদের সাথে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে চবি শাখা ছাত্রলীগ। এদিকে তাদের আন্দোলনে একাত্মতা পোষণ করে স্নারকলিপি দিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্র জোট।

উল্লেখ্য, গত ৩ সেপ্টম্বর প্রকাশিত ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে অস্পষ্টতার জেরে আবেদন করলেও বিশ্ববিদ্যালয় তাদের অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত করায় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না এই শিক্ষার্থীরা। যদিও তাদের আবেদন গ্রহণ করে প্রবেশপত্র ও ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দেয় বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলা/এএএ

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.2779 seconds.