• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৬ নভেম্বর ২০১৯ ১২:২৪:৪৯
  • ২৬ নভেম্বর ২০১৯ ১২:২৫:৪২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ডি আর কঙ্গোয় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে হামলা

ছবি : আল জাজিরা

আফ্রিকার ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব দ্য কঙ্গো (ডিআর কঙ্গো)’র বেনিতে অবস্থিত জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে স্থানীয় বিক্ষোভকারীরা। হামলায় জাতিসংঘের বেশ কয়েকটি গাড়ি ও কার্যালয় পুড়ে গেছে। এসময় লুটপাটও চালানো হয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক বার্তাসংস্থা আল জাজিরা।

গত ২৪ নভেম্বর, রবিবার রাতে দেশটির বিদ্রোহী বাহিনী এল্যাইড ডেমোক্র্যাটিক ফোর্স (এডিএফ)’র এক হামলায় ৮ জন বেসামরিক মানুষ নিহত হয়। হামলাটি ঠেকাতে ব্যর্থ হয় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা বাহিনী। যার প্রতিক্রিয়ায় গতকাল ২৫ নভেম্বর, সোমবার বেনিতে জাতিসংঘের কার্যালয়ে আগুন দেয় স্থানীয় বিক্ষোভকারীরা।

নাগরিক সমাজের নেতা টেডি কাডালিকো সংবাদমাধ্যমকে জানান, সকালে মেয়রের কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। তারপর তারা জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনের সদর দপ্তরের দিকে তারা এগিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ‘সেখানে পৌঁছে বেশ কয়েকটি গাড়ি ও ভবনে আগ্নিসংযোগ করেন বিক্ষোভাকারীরা।’

গাড়ি ও ভবনে অগ্নিসংযোগ করলে তাদের প্রতিহতের চেষ্টা করে পুলিশ ও শান্তিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা। সে সময় কার্যালয়ের বাইরে গুলির শব্দ পাওয়ার কথা জানায় স্থানীয়রা। এই ঘটনায় আশেপাশের এলাকায় ২ বিক্ষোভকারীও নিহত হন।

আলজাজিরা প্রতিনিধি জানায়, হামলায় শান্তিরক্ষা মিশন সদর দপ্তরের মূল ভবনের দেয়ালের অর্ধেক ভেঙে গেছে।

তিনি আরো জানান, বিক্ষোভকারীদের গ্রুপটি স্থানীয় বিমানবন্দরে অবস্থিত জাতিসংঘের আরেকটি সামরিক ঘাঁটির দিকেও গেছে। তবে সেখানকার অবস্থা জানা যায়নি।

বিক্ষোভকারী টনি মুমবেরে আলজাজিরাকে বলেন, ‘আমরা প্রতিবাদ করছি। কারণ, আমাদের তারা কেউ সুরক্ষা দিচ্ছে না। আমাদের নিরাপত্তা দিতে সরকারি ও জাতিসংঘ বাহিনী ব্যর্থ হয়েছে।’

এদিকে আরেক বিক্ষোভকারী জোনাস ক্যামবেলে বলেন, ‘তাদের (শান্তিরক্ষা মিশন) হয় আমাদের নিরাপত্তা দিতে হবে নয় তো আমাদের দেশ ত্যাগ করতে হবে। আমরা মারা যাচ্ছি, আর তারা শুধু তাকিয়ে দেখছে। তারা এখানে আছে কী করতে?’

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন ১৯৯৯ সাল থেকে ডিআর কঙ্গোয় কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। বাংলাদেশসহ বহু দেশের সেনা সদস্যদের নিয়ে গঠিত এই মিশন। সাম্প্রতিক হামলার জন্য এসডিএফকেই দায়ী করছে স্থানীয় পুলিশ।

দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত মাসে শান্তিরক্ষা বাহিনী ওই অঞ্চলে এসডিএফবিরোধী অভিযান শুরুর পর ৬০ জনেরও বেশি নিহত হয়েছে।

বাংলা/এসজে/এসএ

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0740 seconds.