• ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ২০:২৯:৩৫
  • ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ২০:২৯:৩৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কমানো হলো জাবি লাইব্রেরীতে প্রবেশের সময়, শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ

ছবি : বাংলা

জাবি প্রতিনিধি :

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) গ্রন্থাগারে শিক্ষার্থীদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নতুন সময় সূচি নির্ধারণ করেছে কর্তৃপক্ষ। নতুন এ সময়সূচি অনুযায়ী পূর্বের সময় থেকে আড়াই ঘণ্টা সময় কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর নির্ধারিত এ সময়সূচির প্রতিবাদে এবং পুনর্বিবেচনার দাবিতে গ্রন্থাগারের সামনে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

৫ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার বিকেলে লাইব্রেরীর সামনে অবস্থান নেন একাধিক শিক্ষার্থী। এসময় দাবি পুনর্বিবেচনা করা না হলে আগামী রবিবার থেকে কঠোর কর্মসূচির কথা বলেন শিক্ষার্থীরা।

সংশোধিত সময়সূচি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত সময়ে অর্থাৎ রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সকাল সাড়ে আটটা থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত লাইব্রেরীতে শিক্ষার্থীদের অবস্থানের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। যা পূর্বে ছিল সকাল সাতটা থেকে রাত সাড়ে নয়টা পর্যন্ত। এছাড়া শুক্রবার বেলা তিনটা থেকে রাত সাড়ে আটটা এবং শনিবার সকাল নয়টা থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত। যা পূর্বে ছিল যথাক্রমে বেলা তিনটা থেকে রাত সাড়ে নয়টা এবং সকাল নয়টা থেকে রাত সাড়ে নয়টা পর্যন্ত।

এদিকে নতুন নির্ধারিত এ সময় সূচি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা নতুন সময় সূচি নয় বরং পূর্বের সময় বহাল রাখার দাবি জানান। এছাড়া দীর্ঘ বন্ধের পর এমন সিদ্ধান্তে নিন্দা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রতিবাদ জানাতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের। তারা বলছেন দীর্ঘ বন্ধের কারণে লেখা পড়ার ক্ষেত্রে বাঁধার মুখোমুখি হতে হবে শিক্ষার্থীদের আর এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বাড়তি পড়ালেখা করতে হবে। কিন্তু এই সময়ে এমন সিদ্ধান্ত আরো ক্ষতির মুখোমুখি ফেলে দিবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরীর সামনে অবস্থানরত সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ৪৫ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রিপন গাইন বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হঠাৎ এমন সিদ্ধান্তে আমরা হতবিহ্বল। ডিসেম্বর মাসে সব বিভাগের পড়াশোনার চাপ বেশি থাকে এর মধ্যে বিগত একমাস যাবত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ আছে। বন্ধের পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত ছিল ক্ষতি কমাতে লাইব্রেরীর সময় বৃদ্ধি করা, কিন্তু সেটা না করে সময় কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা কতৃপক্ষের কাছে দাবি জানাই এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার। অন্যথা রবিবার থেকে কঠোর অবস্থানে যেতে বাধ্য হবো।'

এ ব্যাপারে ছাত্র ইউনিয়ন বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম অনিক  বলেন,'যেখানে চব্বিশ ঘণ্টা লাইব্রেরি খোলা রাখা দরকার সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সময় আরো কমিয়ে দিয়ে এক খামখেয়ালি সিদ্ধান্ত প্রদর্শন করেছে। এই সিদ্ধান্ত শিক্ষা ও গবেষণার অনুকূল পরিবেশের জন্য বিরাট প্রতিবন্ধকতা হয়েই হাজির হবে। চব্বিশ ঘণ্টা লাইব্রেরি খোলা রাখার দাবি জানাই।'

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারের ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ হানিফ আলী বলেন, 'নতুন নিয়ম হয়েছে কিন্তু কার্যকর হয়নি, রবিবার থেকে কার্যকর করা হবে। সে সময় এটা নিয়ে কথা বললে দেখবো তবে আজকে তারা অবস্থান নিয়েছে এটা জানতাম না আজ অফিস বন্ধ আছে। রবিবার এই বিষয় নিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলবো।'

বাংলা/এএএ

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0849 seconds.