• বিদেশ ডেস্ক
  • ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৮:০৫:৫৯
  • ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৮:০৫:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

জলবায়ু দুর্যোগে প্রতি ২ সেকেন্ডে ১ জন বাস্তুহারা: অক্সফাম

ছবি: সংগৃহীত

জলবায়ুজনিত দুর্যোগে প্রতি দুই সেকেন্ডে অনন্ত একজন ব্যক্তি তার ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়। বছরপ্রতি এ সংখ্যা দুই কোটিতে পৌঁছায়। আর জলবায়ুজনিত প্রভাবই বাস্তুচ্যুত হওয়ার প্রথম কারণ। বেসরকারি সংস্থা অক্সফামের একটি গবেষণায় এমনটি বলা হয়েছে।

বলা হয়, জলবায়ু প্রভাব থেকে কোন দেশ বাদ না গেলেও অপেক্ষাকৃত দরিদ্র দেশগুলোতে এই প্রভাব মারত্মকভাবে বেশি।

গবেষণায় বলা হয়েছে, ভূমিকম্প বা আগ্নেয়গিরি বিস্ফোরণের চেয়ে ঘূর্ণিঝড়, বন্যা এবং দাবানলের দ্বারা মানুষ সাতগুণ বেশি বাস্তুচ্যুত হওয়ার ঝুঁকিতে থাকে।

‘ফোর্সড ফ্রম হোম: ক্লাইমেট-ফুয়েলড ডিসপ্লেসমেন্ট’ শীর্ষক এ গবেষণা দেখা গেছে, ২০০৮ সালে প্রতিবছর ২০০ থেকে বেড়ে এক দশক পরে ১৫০০ এরও বেশি জলবায়ু সংশ্লিষ্ট বিপর্যয় হয়েছে।

গবেষকরা দেখান, ছোট দ্বীপ এবং উন্নয়নশীল দেশ যেমন কুবা এবং তুভালু অন্যতম দশটি দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শিকার হয়েছে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুতের।

স্পেনের মাদ্রিদে চলমান জাতিসংঘ জলবায়ু সম্মেলনকে (কপ-২৫) সামনে রেখে অক্সফাম এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সংস্থাটির জলবায়ু নীতি বিষয়ক প্রধান নাফকোত ডাবি বলেন, আপনি যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন আর মাদ্রিদে থাকেন জলবায়ু সংকটের প্রভাব আপনি পাবেনই।

তিনি আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে চার গুণ বেশি বাস্তুচ্যুত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে।’ অন্যদিকে জলবায়ুজনিত প্রভাব এবং বিবিধ সংঘাতের ফলে সোমালিয়া এবং গুয়াতেমালা ব্যাপকভাবে বাস্তুচ্যুতের শিকার হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিশেষ করে দূষণকারী ধনী দেশগুলোর প্রথম দায়িত্ব হল বৈশ্বিক উষ্ণায়ন কমিয়ে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখা এবং ইতোমধ্যে আক্রান্ত দেশগুলোর কষ্ট লাঘবে পদেক্ষেপ গ্রহণ করা।

গবেষণাটি বলছে, এটা হচ্ছে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর টিকে থাকার বিষয়।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0586 seconds.