• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৪ জানুয়ারি ২০২০ ১২:৪৯:২৬
  • ০৪ জানুয়ারি ২০২০ ১২:৪৯:২৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সহিংসতায় ১৫ বাংলাদেশি জড়িত : দিল্লি পুলিশ

ছবি : টাইমস অব ইন্ডিয়া থেকে নেয়া

ভারতে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভে ১৫ জন অবৈধ বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী জড়িত থাকার প্রমাণ খুঁজে পেয়েছে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল ইনভেস্টিগেটিভ টিম (এসআইটি)। গত ডিসেম্বর মাসে পূর্ব দিল্লির সীমাপুরী ও সিলামপুর এলাকায় ওই সহিংসতার ঘটনা ঘটে।

তদন্তকারী সংস্থাটির বরাত দিয়ে এমন খবর প্রকাশ করেছে ইন্ডিয়া টুডে ও টাইমস অব ইন্ডিয়া।

দিল্লি পুলিশ সূত্র জানায়, সীমাপুরী এলাকায় জুমার নামাজের পর সহিংসতায় জড়িত দুর্বৃত্তদের মধ্যে ১৫ জনের বেশি অবৈধ বাংলাদেশিও ছিলেন এবং তাদের খুব শীঘ্রই গ্রেপ্তার করা হবে।

দিল্লি পুলিশ আরো জানতে পারে, অবৈধ বাংলাদেশিদের প্ররোচণায় সংগঠিত হয়েছিলো সিলামপুরের সহিংসতা। এ বিষয়ে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ জানায়, বাংলাদেশিদের (অনুপ্রবেশকারী) সংগঠিত একটি দল সিলামপুরের  সহিংসতার পেছনে কাজ করেছে। যারা নাগরিকত্ব আইনের ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হবে।

পুলিশ সূত্র আরো জানায়, পূর্বে অপরাধের রেকর্ড রয়েছে এমন কয়েকজন বাংলাদেশি সহিংসতা শুরু করতে সহায়তা করে। সশস্ত্র মুখোশধারী কিছু অনুপ্রবেশকারী রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি পুড়িয়ে দেয়।

সহিংসতার অভিযোগে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতের অনুমতি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবে এসআইটি। একই সাথে সহিংসতায় পিছনে অর্থের উৎস নিয়েও খোঁজ করা হবে। পুলিশ সন্দেহ করছে, বিদেশ থেকে এই অর্থের যোগান দেয়া হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ওই সহিংসতার ঘটনায় হালনাগাদ তথ্য জানায় তদন্তকারী সংস্থা। সেই হালনাগাদ তথ্যে সহিংসতায় অংশ নেয়া ১৫ জনের বেশি বাংলাদেশিকে শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানায় তদন্তকারী দল।

প্রসঙ্গত, ভারতে ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল-২০১৯’ লোকসভায় পাস হওয়ার দুই দিন পর ১১ ডিসেম্বর উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হয়। বিলটি পাস হওয়ার পর আসাম, মেঘালয় ও পশ্চিমবঙ্গের পর এর বিরুদ্ধে দিল্লি, উত্তর প্রদেশ ও লক্ষ্নৌসহ সারা দেশব্যাপী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের হামলার প্রতিবাদে ফুঁসে উঠে ভারতের ছাত্র সমাজ। শুধু ছাত্ররাই নয়, বিক্ষোভে যোগ দেন দেশটির বিভিন্ন স্তরের ও ধর্মের লোকজন। বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভ রূপ নেয় গণআন্দোলনে।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0202 seconds.