• বাংলা ডেস্ক
  • ১৬ জানুয়ারি ২০২০ ২১:৩৬:৩৮
  • ১৭ জানুয়ারি ২০২০ ১১:২০:৪৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত : কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। ছবি : সংগৃহীত

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘পেঁয়াজের দাম এই মুহূর্তে বেশি। তবে কোনো ক্রমেই পেঁয়াজের দাম ১১০ টাকা কেজি থাকবে না। এটা অবশ্যই কমে আসবে। ভারত ইতোমধ্যেই পেঁয়াজ রপ্তানির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে, কাজেই পেঁয়াজের দাম কমবে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাদশ জাতীয় সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে আজ বৃহস্পতিবার মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে শিরিন আখতারের (ফেনী-১) সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘এখন পেঁয়াজের মৌসুম। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে পেঁয়াজ আসছে এবং অন্যান্য দেশ থেকেও এসময় পেঁয়াজ আসবে। এছাড়া আমাদের বিজ্ঞানীরা পেঁয়াজের অনেক উন্নতমানের জাত আবিষ্কার করেছেন এবং এখন হেক্টরে ২০, ২৫, ৩০ টন পর্যন্ত পেঁয়াজ উৎপাদন করা সম্ভব।’

সরকারি দলের আয়েন উদ্দিনের অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘পেঁয়াজ নিয়ে মানুষের মধ্যে কিছুটা ক্ষোভ ও আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছিল। এটা ঠিক। গত মৌসুমে অধিক বৃষ্টিপাতের কারণে জমিতেই পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়, ফলে অধিক ঘাটতির সৃষ্টি হয়। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত হঠাৎ করে পেঁয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির কারণে দেশে হু হু করে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পায়, আমরা বাজারে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি। সরকার দ্রুত চীন, মিশরসহ কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে বাজার নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। তবে বর্তমানে দাম স্থিতিশীল রয়েছে। যদি প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হয়, তবে আগামীতে পেঁয়াজ নিয়ে কোনো সঙ্কট সৃষ্টি হবে না। যদি আমদানি করতেই হয়, তবে আগে থেকেই আমদানির ব্যবস্থা করা হবে। কৃষকরা যাতে পেঁয়াজ উৎপাদন করে ন্যায্যমূল্য পায় তার জন্য স্থানীয়ভাবে পিয়াজ সংরক্ষণের নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট বিষয়

পেঁয়াজ ভারত বাংলাদেশ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0498 seconds.