• বাংলা ডেস্ক
  • ১৮ জানুয়ারি ২০২০ ১৫:৫২:১৩
  • ১৮ জানুয়ারি ২০২০ ১৫:৫২:১৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

গরিবদের চেয়ে ধনীরা ১০ বছর বেশি সুস্থ থাকেন

ছবি : সংগৃহীত

সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশেও বাড়ছে ধনী-গরীবের আয়ের বৈষম্য। আর এ আয় বৈষম্যের প্রভাব পড়ছে মানুষের স্বাস্থ্যের উপরেও। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে, কম আয়ের মানুষ বা গরিবদের তুলনায় ধনী ব্যক্তিরা গড়ে ৯ বছর বেশি সময় স্বাস্থ্যবান ও প্রতিবন্ধকতামুক্ত জীবনযাপন করে।

সিএনএন’এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গবেষকরা যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের ৫০ বছরের বেশি বয়স্ক ২৫ হাজারেরও বেশি মানুষের ডাটা বিশ্লেষণ করেছেন। বিশ্লেষণে তারা বার্ধক্যজনিত সমস্যা বা রোগে ভুগতে শুরু করার আগে যেমন বিছানা থেকে একাই উঠতে পারা বা নিজের জন্য রান্না করতে পারার মতো অবস্থায় কত বছর সুস্থভাবে বেঁচেছিলেন, এমন বিষয়গুলো সন্ধান করেছেন।

গবেষণা দলটি আবিষ্কার করেন, ধনী ব্যক্তিরা শারীরিক অসুবিধার সম্মুখীন হওয়ার আগে প্রায় অতিরিক্ত এক দশক উপভোগ করেছে। আর এর বৃহত্তম আর্থসামাজিক কারণ হলো সম্পদ। ৫০ বছর বয়সের পর ধনী একজন পুরুষ যেখানে আরো ৩১টি স্বাস্থ্যকর বছর আশা করতে পারে, সেখানে তুলনামূলক কম সম্পদের অধিকারী একজন পুরুষ কেবল ২২ থেকে ২৩ স্বাস্থ্যকর বছর আশা করতে পারে। নারীর ক্ষেত্রেও ধনী-গরিবের মধ্যে সুস্থ থাকার ব্যবধান প্রায় একই। ৫০ বছরের পর একজন ধনী নারী আরো ৩৩ বছর স্বাস্থ্যকর জীবন উপভোগ করতে পারলেও দরিদ্র একজন নারী পারছে ২৪ বছর।

গবেষণা প্রবন্ধটির প্রধান লেখক ও ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ পাওলো জ্যানিনোট এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, যদিও আয়ু স্বাস্থ্যের একটি কার্যকর সূচক, তবে বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে জীবনযাত্রার মানও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্যকর জীবন প্রত্যাশা পরিমাপের মাধ্যমে আমরা স্বাস্থ্যের অনুকূল অবস্থায় বা প্রতিবন্ধকতা ছাড়াই জীবনের কত বছর ব্যয় করছি, তার একটা অনুমান পেতে পারি।

ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর একদল গবেষক এ সমীক্ষা পরিচালনা করেছেন। যদিও মানুষের সুস্থ বা দীর্ঘ জীবন পাওয়ার ক্ষেত্রে সম্পদ কী ধরনের ভূমিকা রাখে; এর উত্তর থেকে এ সমীক্ষা এখনো অনেক দূরে। গবেষকরা জীবন মানের চেয়ে বরং প্রত্যাশার দিকে বেশি নজর দিয়েছেন।

 

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0212 seconds.