• বিদেশ ডেস্ক
  • ৩০ জানুয়ারি ২০২০ ১৬:২০:২৫
  • ৩০ জানুয়ারি ২০২০ ১৬:২০:২৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ছিলেন তরুণী, ‘মাছ খেতেই’ হয়ে গেলেন বৃদ্ধা

থি ফুয়ং। ছবি : সংগৃহীত

২৩ বছরের ওই তরুণীকে দেখলে মনে হবে যেন ৭৩ বছর বয়সী বৃদ্ধা। মাছ খাওয়ার কারণে এমনটি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ভয়াবহ এ ঘটনাটি ঘটেছে ভিয়েতনামে। 

ডেইলি মেইল’এর এ প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিদিনের মতোই মধ্যাহ্নভোজনে মাছ খান গৃহবধূ থি ফুয়ং। এরপরই ওই তরুণীর শরীরে শুরু হয় অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন। অ্যালার্জির জেরে তরুণী থেকে বৃদ্ধায় পরিণত হন থি ফুয়ং।

ঘটনার সূত্রপাত হয় ২০০৮ সালে। বুড়িয়ে যেতে থাকেন ওই তরুণী। দীর্ঘ ১২ বছরেও মেলেনি সমাধান। বরং পরিস্থিতি আরো জটিল হয়েছে। অবশেষে, ভিয়েতনামের মেকং ডেলটা অঞ্চলের বেন ট্রি এলাকার বাসিন্দা থি ফুয়ং ও তার পেশায় মিস্ত্রি স্বামী থান টুয়েন সাহায্য চেয়ে পুরো ঘটনাটি মিডিয়ার সাহায্যে প্রকাশ্যে আনেন।

চিকিৎসকদের মত, থি ফুয়ং-এর পরিস্থিতিকে ডাক্তারি ভাষায় বলে লাইপোডিসট্রফি। এটি এমন একটি অসুখ যেখানে ত্বকের নীচে পুরু ফ্যাটি টিস্যুর স্তর তৈরি হয়। এই সিনড্রোমের চিকিৎসা এখনও পর্যন্ত নেই বললেই চলে। এই অসুখে আক্রান্ত ব্যক্তিদের চামড়া ঝুলে পড়ে, গোটা শরীর বুড়িয়ে যায়। মারাত্মক বিরল এই অসুখ। গবেষণা বলছে, গোটা বিশ্বে মাত্র ২ হাজার মানুষ এই অসুখে আক্রান্ত।

২০০৬ সালে নিজের বিয়ের ছবি দেখে এখনো ভেঙে পড়েন থি ফুয়ং। জানান, মাছ খাওয়ার পর প্রথমে গোটা শরীর চুলকাতে শুরু করে।

তিনি জানান, হাসপাতালে যাওয়ার টাকা ছিল না, তাই স্থানীয় একটি ওষুধের দোকান থেকেই অ্যালার্জির ওষুধ কিনে খান। টানা একমাস ওষুধ খেয়েও কোনো ফল পাওয়া যায়নি। ততদিনে বৃদ্ধার চেহারার আকার নিয়েছে থি ফুয়ং-এর পুরো শরীর।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ভিয়েতনাম লাইপোডিসট্রফি

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0691 seconds.