• বাংলা ডেস্ক
  • ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২১:০৩:১২
  • ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২১:০৩:১২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

অথচ আমিই প্রথম বঙ্গবন্ধুর খুনির সভায় হামলা চালিয়েছিলাম : নাছির

সংবাদ সম্মেলনে নাছির উদ্দীন। ছবি : সংগৃহীত

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলের মনোনয়ন না পেলেও হতাশ নন বলে মন্তব্য করেছেন এই সিটির বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তবে দলের মনোনয়ন থেকে ছিটকে পড়ায় তার বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের অপপ্রচারকে দুষছেন তিনি। অপপ্রচারের কারণে দল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেই মনে করেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা এই নেতা।

১৮ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময়সভায় আ জ ম নাছির এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সভাটির আয়োজন করা হয়।

মেয়রের পদের চেয়েও রাজনীতিকেই বড় করে দেখেন মন্তব্য করে নাছির বলেন, ‘মেয়রের পদ বড় না, রাজনীতিটাই বড়। কেউ যদি বলত তিনি মেয়র হতে চান, আমি ছেড়ে দিতাম। কিন্তু আমার বিরুদ্ধে এত অপপ্রচার কেন? এতে তো দলই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শতভাগ মিথ্যাকে প্রতিষ্ঠিত করার কোনো মানে হয়?’

আগামী ২৯ মার্চ চট্টগ্রাম সিটিতে ভোট হবে। এরইমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দলের পরীক্ষিত ত্যাগী নেতা নগর কমিটির যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরীকে মনোনয়ন দিয়েছে। মনোনয়ন না পেলেও রেজাউলের পক্ষে কাজ করার কথাও জানিয়েছেন বর্তমান মেয়র।

নাছিরের ভাষ্য, তিনি অনেক আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছেন। আরেকজন আ জ ম নাছির তৈরি করতে অনেক বছর সময় লাগবে। মনোনয়ন না পেয়ে হতাশ বিক্ষুব্ধ না হলেও অপপ্রচারের কারণে তিনি কষ্ট পেয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘একটি বিষয় আমাকে কষ্ট দিয়েছে। যে সংগঠনের জন্য জীবন-যৌবন দিয়েছি, তারাই আমাকে বঙ্গবন্ধুর খুনির দোসর বানাতে ওঠেপড়ে লেগেছে। অথচ আমিই প্রথম পরিকল্পনা করে বঙ্গবন্ধুর খুনি কর্নেল (অব) রশিদের সভায় হামলা চালিয়েছিলাম।’

‘ফ্রিডম পার্টির নেতাকর্মীদের খুঁজে খুঁজে বের করে চট্টগ্রাম থেকে তাড়িয়েছিলাম। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ’৭৬ সালের জানুয়ারি মাসে সর্বপ্রথম আমরা ৫-৬ জন মিলে মিছিল করেছিলাম।’

সম্প্রতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যার মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মেয়র নাছিরের দীর্ঘদিনের ব্যবসায়িক ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক আছে বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগের কর্মীদের অনেকে একটি ছবিও ফেসবুকে প্রকাশ করেন।

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0213 seconds.