• ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৬:১৬:১৬
  • ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৫:২৬:৩০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কেন পিবিআই মিডিয়া ট্রায়ালে নামলো?

ছবি : পিবিআই


রফিকুল রঞ্জু 


কেউ একটা প্রশ্নও করলো না তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে না দিয়ে পিবিআই কেন একটি অত্যন্ত সাজানো গোছানো প্রেজেন্টেশন মিডিয়াকে দিল? আঁকা ছবি, তোলা ছবি, স্লাইড শো, বক্তৃতাবাজি কী ছিল না এই প্রেজেন্টেশনে?

বহু কিছু হাজির করলেও শাবনূরের সাথে 'অতি অন্তরঙ্গ' সম্পর্কের কোনো প্রমাণ হাজির করেনি। সব শোনা কথার একপেশে বাগাড়ম্বর!

যেমন- পিবিআই বলছে, আগের রাতে সাড়ে ১১টায় এবং সোয়া ১২ টায় সালমানের ফোনে শাবনূরের ফোন আসে! এর কীভাবে কোথায় কোন ভঙ্গিমায় সালমান কথা বলেন তার বর্ণনা তারা দিয়েছে। কিন্তু ফোন যে শাবনূর করেছিল তার প্রমাণ কী? কললিস্ট পেয়েছে? বা ফোনরেকর্ড? না। অকাট্য প্রমাণ পায়নি, সেজন্যই হয়তো মিডিয়ায় তা হাজির করতে পারেনি। পিবিআইর কথা অনুযায়ী তাদের প্রমাণ হলো সামিরার কথা!!

পিবিআই’র আঁকা ছবি

যাদের সাক্ষ্যের (এগুলোকে আসলে অভিযোগ বলা উচিত) ওপর ভিত্তি করে পিবিআই রায় দিলো, সেই ব্যক্তিদের বক্তব্য কি তারা ক্রসচেক বা যাচাই করেছে? সম্ভবত করেনি। অন্তত তাদের প্রেজেন্টেশন ও বক্তব্য থেকে সেরকম কিছু বুঝতে পারিনি।

সবচেয়ে বড় কথা আদালতকে এড়িয়ে আগেই রায় দিলো পিবিআই। কেন? এটা তাদের কাজ, কিংবা মিডিয়ার? কেন পিবিআই মিডিয়া ট্রায়ালে নামলো?

পিবিআই’র আঁকা ছবি

২৪ ফেব্রুয়ারি, সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ধানমন্ডির সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে চিত্রনায়ক সালমান শাহ’র তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সেই সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বলেন, ‘চিত্রনায়ক সালমান শাহ’র হত্যার অভিযোগের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি, শাবনূরকে নিয়ে পারিবারিক কলহের জেরে সালমান আত্মহত্যা করেছিলেন।’

হত্যা হোক বা আত্মহত্যা সেটা আদালতে যুক্তিতর্কের মধ্য দিয়ে নির্ধারিত হবে। পাল্টা যুক্তিতর্কের মুখে পড়লে পিবিআইয়ের এই প্রতিবেদন টিকতে পারবে বলে মনে হয় না। তবু পিবিআই ও মিডিয়া একজন নারীকে যেভাবে জাতির কাছে হেনস্তা করলো, তার বিচার করবে কে?

পিবিআই’র আঁকা ছবি

সালমানের স্ত্রী বা অন্য কেউ এ নিয়ে এর আগে আইনি প্রক্রিয়ায় বা তার বাইরে শাবনূরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে বলে জানা যায়নি।

আল্লা মালুম কী হচ্ছে এই দেশে! পাপিয়াকেও যে আটক করলো, অভিযান চালালো সেটার প্রক্রিয়াও কতটা আইনানুগ বা নিয়মানুগ সেটাও মাথায় ঢোকে না। এমন কতকিছুই যে আজকাল মাথায় ঢুকছে না, সেটাও মাথায় আসছে না! বিশ্বাসের জগতটা হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে যাচ্ছে।

লেখক : সাংবাদিক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

সালমান শাহ পিবিআই

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0208 seconds.