• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১১:০০:৪৬
  • ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১১:০০:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাবি

সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না জাবিও

ফাইল ছবি

দেশে সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় রাজি হচ্ছে না গুরুত্বপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। এতে অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)। একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি)।

গতকাল ২৫ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার বিকেলে জাবির সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (প্রশাসন) আমির হোসেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদের (একাডেমিক কাউন্সিল) জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষার বিষয়টি জটিল ও অস্পষ্ট উল্লেখ করে আমির হোসেন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল এই মুহূর্তে এমন অস্পষ্ট এবং জটিল পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা না নেয়ার জন্য সর্বসম্মতক্রমে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

এ ছাড়া কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব স্বকীয়তাবিরোধী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতাবিরোধী এবং ভবিষ্যতের জন্য অকল্যাণকর হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল মনে করছে বলেও জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য (শিক্ষা) নূরুল আলম এ বিষয়ে বলেন, ‘ইউজিসির আয়োজনে হতে যাওয়া কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় এ বছর না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদ।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত নিয়মেই পরবর্তী ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

একইরকম সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রভাষ কুমার কর্মকার। সোমবার বিকেলে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে উপাচার্য এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদের (একাডেমিক কাউন্সিল) সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানান তিনি। 

প্রভাষ কুমার কর্মকার বলেন, ‘সভায় বেশির ভাগ সদস্য সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় না যাওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন। ফলে পুরোনো পদ্ধতিতেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।’ 

এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি, বুধবার সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত জানায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)। এর পরদিন বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

বাংলা/এসএ

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0197 seconds.