• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১০ মার্চ ২০২০ ১৫:৪৮:২২
  • ১০ মার্চ ২০২০ ১৫:৪৮:২২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

গণভবনে শিক্ষামন্ত্রী- আ.লীগ নেতার ঝগড়া

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ছবি : সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সঙ্গে কেন্দ্রীয় সদস্য আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইনের মধ্যে তুমুল কথা কাটাকাটি হয়েছে। ৮ মার্চ, সোমবার দলের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা শেষে ব্যাংকুয়েট হলের বাইরে এমন ঘটনা ঘটে।

এর একপর্যায়ে আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন  নাছিম দুজনকে থামানোর চেষ্টা করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘গণভবন ঝগড়ার জায়গা নয়।’ বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতার বরাত দিয়ে এমন খবর প্রকাশ করেছে দেশ রূপান্তর।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, আ খ ম জাহাঙ্গীর রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বলেন, বগুড়ায় এক অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর মুখোশ পরে স্কুলশিক্ষার্থীরা শিক্ষামন্ত্রীকে স্বাগত জানায়। এটা কীভাবে দীপু মনি গ্রহণ করলেন, প্রশ্ন তোলেন তিনি। এ সময় বিষয়টি নিয়ে সেখানে কিছু না বললেও বাইরে এসে জাহাঙ্গীরকে উদ্দেশ্য করে দীপু মনি বলেন, ‘আর কোনো পত্রিকা দেখলেন না, শুধু প্রথম আলো দেখে বক্তব্য রাখলেন। যে পত্রিকা প্রধানমন্ত্রী নিজেও পড়েন না।’ এর জবাবে জাহাঙ্গীর বলেন, ‘আপনি উত্তর দেন ঘটনা সত্যি কি না?’

এক সময় উচ্চবাচ্য বাড়তে থাকলে বাহাউদ্দিন নাছিম এসে বলেন, ‘শুধু ওই পত্রিকা নয়, আমি তো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখেছি। জবাব দেন ঘটনা সত্যি কি না?’

এরপর একপর্যায়ে জাহাঙ্গীরকে উদ্দেশ্য করে দীপু মনি বলেন, ‘আমি কি সংস্কারপন্থি, সংস্কারপন্থি হলে জানতাম অনেক কিছু।’ এর জবাবে জাহাঙ্গীর বলেন, ‘এখানে সংস্কারপন্থি আনলেন কেন? শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে তো শিক্ষাব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছেন।’

এর আগে বৈঠকে জাহাঙ্গীর আরো বলেন, ‘মুজিববর্ষের কর্মসূচি উদযাপনে আমাদের আরো সতর্ক হওয়া উচিত।’

কেন্দ্রীয় কমিটির আরেক সদস্য আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘নেত্রী আপনি রাতদিন খাটাখাটনি করে কিছু অর্জন ঝুড়িতে জমা করছেন, আর আমাদের নেতাকর্মীদের কারণে সেই অর্জন নষ্ট হচ্ছে। যেমন আমরা জানতাম, হাকিম নড়ে তো হুকুম নড়ে না। কিছুদিন আগে আমরা পিরোজপুরে দেখলাম হুকুমও নড়ল এবং হাকিমও নড়ল। এতে আমাদের অর্জন নষ্ট হয়। তারপর ৭ মার্চের আলোচনা সভার ব্যাজে দেখলাম লেখা, আমাদের দাবায়া রাখতে পারবা না পরে তিনটা ডট। এর মানে বুঝলাম না। এগুলো কারা করে? এ ধরনের আর অনেক অপকর্ম আছে।’

এ সময় শেয়ারবাজারের প্রসঙ্গ টেনে দলটির অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক ওয়াসেকা আয়েশা খান বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রসহ পৃথিবীর অনেক দেশে শেয়ারবাজারে ধস নামে। সেখানে সুইফট কোডের মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। আমাদের দেশে সে ব্যবস্থা আছে কি না আমি বলতে পারবো না। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় উপকরণের মূল্যবৃদ্ধির ব্যাপারে সরকারকে ব্যবস্থা নিতে হবে।’ বাইরের অন্যান্য দেশের মতো এর সামগ্রী কিনতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সহায়তা নেয়া যায় কি না, তা ভেবে দেখার পরামর্শ দেন তিনি।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0230 seconds.