• বিদেশ ডেস্ক
  • ১০ মার্চ ২০২০ ১৭:৩৭:১২
  • ১০ মার্চ ২০২০ ১৭:৩৭:১২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

হামাসকে সমর্থন করায় সৌদিতে ৬৮ জনের বিচার

ডা. মোহাম্মদ আল- খুদারিকে গ্রেপ্তারের দৃশ্য। ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজার ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের প্রতি সমর্থন দেয়া অভিযোগে ৬৮ ব্যক্তির বিচার করেছে সৌদি সরকার। অভিযুক্তরা ফিলিস্তিন ও জর্দানের নাগরিক। সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে হামাসকে সন্ত্রাসবাদী সংগঠন চিহ্নিত করে সৌদি সরকার।

আল-জাজিরা’র বরাত দিয়ে পার্সটুডে জানায়, ৬৮ জন ফিলিস্তিনি ও জর্দানের নাগরিককে সৌদি স্পেশাল টেরোরিজম কোর্টে বিচারের সম্মুখীন করা হয়েছে। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে ৮ মার্চ, রবিবার থেকে বিচার কার্যক্রম শুরু করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ফিলিস্তিনি নাগরিকদের পরিবার ও স্বজন জানায়, যথাযথ আইনি প্রতিনিধি ছাড়াই ফিলিস্তিনি বন্দীদের বিচার কাজ শুরু করেছে সৌদি আরব। গত বছরের এপ্রিল মাসে সৌদি গুপ্ত পুলিশ বাহিনী এ সব ফিলিস্তিনিকে আটক করেছিল।

অভিযুক্তদের একজন ডা. মোহাম্মদ আল- খুদারি (৮১) রয়েছেন। তিনি বহুদিন ধরে সৌদি আরবে বসবাস করছেন এবং বর্তমানে কোলন ক্যান্সারে ভুগছেন। আল-খুদারির ছেলে এবং সৌদি আরবের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক অধ্যাপক ড. হানি আল-খুদারিকেও আটক করা হয়। যদিও অধ্যাপক ড. হানি কোনো রকমের রাজনৈতিক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত নন।

মোহাম্মদ আল-খুদারির ভাই আবদুল মাজেদ জানান, তার ভাই এবং ভাইয়ের ছেলেকে গত সাত মাস ধরে নির্জন কারাকক্ষে রাখা হয়েছে। আগামী ৫ মে তাদের মামলার পরবর্তী তারিখ রয়েছে।

ফিলিস্তিনি নাগরিকদের ওপর এ ধরনের ধরপাকড় অভিযানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

প্রসঙ্গত, আল-খুদারি দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবে হামাসের প্রতিনিধি ছিলেন। আরব বিশ্বে হামাসকে বৈধ ইসলামি প্রতিরোধ সংগঠন মনে করা হয়। এই সংগঠনটি মূলত ফিলিস্তিনে চলামান ইসরায়েলের দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 1.6389 seconds.