• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৩ মার্চ ২০২০ ১৭:০২:৫৮
  • ১৩ মার্চ ২০২০ ১৭:০২:৫৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসে ভারতে প্রথম ১ জনের মৃত্যু

ছবি : সংগৃহীত

ভারতের কর্নাটকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক বৃদ্ধার (৭৬) মৃত্যু হয়েছে। ওই বৃদ্ধার মৃত্যু গত মঙ্গলবার হলেও  ১৩ মার্চ কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বি শ্রীরামুলু এ তথ্য নিশ্চিত করেন। করোনা সংক্রমণে ভারতে এই প্রথম কোন ব্যক্তির মৃত্যু হলো। এমন খবর প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার।

এ বিষয়ে কর্নাটক সরকার জানায়, ওই বৃদ্ধের লালারস পরীক্ষায় করোনাভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি দিয়ে ওই মৃত্যুর কথা জানায়।

কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর টুইটে জানান, ‘কলবুর্গীর বাসিন্দা ৭৬ বছরের ওই বৃদ্ধা দু’দিন আগে মারা যান। সন্দেহ করা হয়, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। পরীক্ষার পর সেই ধারণা প্রমাণিত হয়।’

কলবুর্গীর বাসিন্দা ওই বৃদ্ধ গত ২৯ ফেব্রুয়ারি সৌদি আরব থেকে ভারতে আসেন। হায়দরাবাদ বিমানবন্দরে তাকে পরীক্ষা করা হলেও তার দেহে সংক্রমণের কোনো উপসর্গ পাওয়া যায়নি।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, গত ৬ মার্চ ওই বৃদ্ধের জ্বরের উপসর্গ ও সর্দি-কাশি হয়। ওই দিনই তাকে বাড়িতে গিয়ে দেখে আসেন এক জন চিকিৎসক। এরপর ৯ মার্চ অবস্থার অবনতি হলে কলবুর্গী জেলার একটি হাসপাতালে বৃদ্ধকে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসকদের সন্দেহ হয়, বৃদ্ধ করোনা-আক্রান্ত। ৯ মার্চই বৃদ্ধের লালারস সংগ্রহ করে পরীক্ষায় পাঠানো হয়।

তিনি আরো জানান, রিপোর্ট পাওয়ার আগেই চিকিৎসকদের মতামত উপেক্ষা করে ওই বৃদ্ধকে কলবুর্গীর হাসপাতাল থেকে হায়দরাবাদের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যেরা। সেই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়ার পরে গত মঙ্গলবার ওই বৃদ্ধকে যখন কলবুর্গীর গুলবর্গা ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, তখন তিনি রাস্তায় মারা যান।

কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ওই বৃদ্ধার পরিবারের সদস্য এবং তার সঙ্গে হাসপাতালে যারা দেখা করেছিলেন, তাদের খোঁজ চলছে। নিয়ম অনুযায়ী, তাদেরও কোয়ারেন্টাইন করা হবে। বৃদ্ধ যে হায়দরাবাদের একটি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন, তা জানানো হয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশে প্রশাসনকেও।

ভারতে এ পর্যন্ত ৭৪ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে ৫৭ জন ভারতীয় ও ১৭ জন বিদেশি। দিল্লিতে ৬, হরিয়ানায় ১৪, কেরালায় ১৭, রাজস্থানে ৩, তেলেঙ্গানায় ১, উত্তর প্রদেশে ১১, লাদাখে ৩, তামিলনাড়ুতে ১, জম্মু-কাশ্মীরে ১, পাঞ্জাবে ১, কর্নাটকে ৪ এবং মহারাষ্ট্রে ১২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে ১৩ মার্চ, শুক্রবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশবাসীকে করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না-হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এছাড়া দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলছন, ‘পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। নজিরবিহীন পরিস্থিতিতে নজিরবিহীন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’

এদিকে দিল্লি ও হরিয়ানা সরকার করোনাভাইরাসকে মহামারি ঘোষণা করেছে। দিল্লিতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্কুল-কলেজ ও সিনেমা হল বন্ধ। গত বৃহস্পতিবার এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে করে ইরান থেকে ১২০ জনকে দেশে ফেরানো হচ্ছে। জয়সলমেরে সেনার তত্ত্বাবধানে তাদের কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হবে।

বাংলা/এনএস

সংশ্লিষ্ট বিষয়

করোনাভাইরাস ভারত

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0200 seconds.