• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৫ মার্চ ২০২০ ১৩:৩৬:৩৮
  • ২৫ মার্চ ২০২০ ১৮:৪২:০১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারি পরবর্তী কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্র : ডব্লিউএইচও

ছবি : সংগৃহীত

ইউরোপের পর প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ২৪ মার্চ, মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এই সতর্ক বার্তা দিয়েছে। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ছে বলেও জানায় সংস্থাটি। এমন খবর প্রকাশ করেছে রয়টার্স।

এ বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেন, ‘আমরা দেখছি, যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা খুব দ্রুত গতিতে বাড়ছে। তাই দেশটি বৈশ্বিক এই মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হওয়ার আশঙ্কা অনেক বেশি।’

এদিকে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য মতে, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬ হাজার ছাড়িয়েছে। এরই মধ্যে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৫৯৩ ছাড়িয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য যথেষ্ট স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম তাদের হাতে নেই বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম্প। গত মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প লিখেছেন, ‘মাস্ক ও ভেন্টিলেটরের বৈশ্বিক বাজার অভাবনীয় পর্যায়ে রয়েছে। অঙ্গরাজ্যগুলোকে চিকিৎসা সরঞ্জাম পেতে আমরা সাহায্য করছি, কিন্তু এটি সহজ নয়।’

এর মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৬০০ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ড ওমিটার। সংস্থাটির ওয়েবসাইটে বলা হয়, দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে ৪৯ হাজার ১৭৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৬১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসা গ্রহণের পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৯৫ জন।

এর আগে মঙ্গলবার মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন জানায়, এ পর্যন্ত বাহিনী সংশ্লিষ্ট ১৭৪ জনের দেহে এ ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে।

এছাড়াও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের নেতৃত্ব গঠিত হোয়াইট হাউস করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সের এক কর্মীও এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এরপর মাইক পেন্স ও তার পরিবারের সদস্যদের পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে পরীক্ষায় তাদের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0203 seconds.