• বাংলা ডেস্ক
  • ২৬ মার্চ ২০২০ ১৭:১০:৪৯
  • ২৬ মার্চ ২০২০ ১৭:১০:৪৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বাজারে ছড়াচ্ছে নকল স্যানিটাইজার

ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের মধ্যে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার বেড়েছে। ফলে চাহিদাও বেড়েছে। এই সুযোগে অসাধু ব্যবসায়ীরা বিক্রি করছেন নকল স্যানিটাইজার।

মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুরে একটি ওষুধের দোকানে স্যানিটাইজার নিয়ে আসেন এক বিক্রেতা। তিনি ওষুধের দোকানিকে জানান, মালয়েশিয়ায় তৈরি সানজেল ব্র্যান্ডের মেডিকেল হ্যান্ড স্যানিটাইজার তার কাছে রয়েছে। ওষুধের দোকানিকে তিনি ৫০ মিলিলিটার ১৩০ টাকা দরে দিয়ে যান, যা ১৫০ টাকায় বিক্রির পরামর্শ দেন। অথচ একই মানের স্যানিটাইজার ৮০ থেকে ১০০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। এরপর ওষুধের দোকানি ওই স্যানিটাইজার বিক্রির সময় এক ক্রেতা বোতলের গায়ের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য দেখতে চান। বোতলে কোনো মূল্য না থাকায় ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা সৃষ্টি হয়। পরে তিনি বিক্রি বন্ধ করে দেন।

এর পর পণ্য সম্পর্কে খোঁজ নিলে বেরিয়ে আসে নকল স্যানিটাইজারের তথ্য। জানা যায়, বোতলের গায়ে মালয়েশিয়ার ডলফিন হেলথ কেয়ার নামের প্রতিষ্ঠানের তৈরি সানজেল ব্র্যান্ড লেখা রয়েছে। বোতলের গায়ে বারকোডও আছে। ওই বারকোড অনুযায়ী মালয়েশিয়ার এই প্রতিষ্ঠান পাওয়া যায়নি। তবে যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি পোশাক প্রতিষ্ঠানের বারকোডের সঙ্গে মিল পাওয়া যায়। মালয়েশিয়ার ডলফিন হেলথ কেয়ার কোম্পানির সানজেল ব্র্যান্ডের পণ্য নেই। ওই কোম্পানির ওয়েবসাইটে দেখা যায়, তাদের 'প্যাথল' ব্র্যান্ডের হ্যান্ড স্যানিটাইজার রয়েছে। তবে বোতলের গায়ে কোম্পানির নাম-ঠিকানার সঙ্গে মিল রয়েছে। সানজেল ব্যান্ডের এই পণ্যের গায়ে উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখও নেই। এমনকি কোন প্রতিষ্ঠান আমদানি করেছে তারও কোনো সিল বা স্টিকার নেই।

এর পর ওষুধ বিক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভালো মানের বিদেশি পণ্য বলে দিয়ে গেছে। কিন্তু এমন প্রতারণা করবে তা ভাবতে পারিনি।

মিরপুরের আরো বেশ কয়েকটি ওষুধের দোকানি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কয়েকদিন ধরে স্যানিটাইজার চাহিদামতো দেশি কোম্পানিগুলোর প্রতিনিধিরা দিতে পারছেন না। এই সুযোগে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় তৈরি করে বিদেশি বলে নিয়ে আসছেন অনেকে। এই সময়ে অসাধু এ চক্র নকল স্যানিটাইজার দিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। কিছু দোকানি বলেন, বোতলের গায়ে বিবরণ ঠিক না থাকায় এ পণ্য বিক্রির জন্য না রেখে ফেরত দিয়েছেন।

এদিকে গত শনিবার পুরান ঢাকার মিটফোর্ডে অভিযানে স্যানিটাইজার তৈরির কাঁচামাল আইপিএ (আইসো প্রোপাইল অ্যালকোহল) বিক্রিতে জালিয়াতি করায় এক ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অন্য ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা হয়। 

এ বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ও ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের প্রধান মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, বাজারে বাড়তি চাহিদার সুযোগ নিয়ে স্থানীয়ভাবে অসাধু চক্র এমনটা করছে। ইতোমধ্যে নকল পণ্য যাতে তৈরি না হয়, এ জন্য মিটফোর্টে অভিযান চালিয়ে যত্রতত্র পণ্য বিক্রির ক্ষেত্রে সতর্ক করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0249 seconds.