• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৯ মার্চ ২০২০ ১৭:০০:৪৩
  • ২৯ মার্চ ২০২০ ১৭:০০:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

করোনা কিট নিয়ে অন্তঃসত্ত্বার গবেষণা, দেশকে দিলেন সুখবর

মিনাল দাখাভে ভোঁসলে। ছবি : সংগৃহীত

১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারতে 'মাস টেস্টিং' কতটা সম্ভব, তা নিয়ে প্রথম থেকেই সংশয়ে বিশেষজ্ঞরা। এমনকী করোনার উপসর্গ নিয়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ হাসপাতালগুলোতে এলে তাদের কীভাবে টেস্ট করা হবে, তা নিয়ে নানা আশঙ্কার কথা শোনা যাচ্ছিল।

দেশের এমন চরম দুঃসময়েই অভূতপূর্ব সাফল্য এনে দিলেন মিনাল দাখাভে ভোঁসলে। দেশের জন্য প্রথম দেশীয় কিট বানালেন তিনি, যা ন্যাশনাল ইন্সটিউট অব ভাইরোলজির (এনআইভি) গুণমানের মাপকাঠিতে উত্তীর্ণ হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময়’এর প্রতিবেদনে বলা হয়, মিনাল যখন এই কিট তৈরি করছেন, তখন তিনি অন্তঃসত্ত্বা। একদিকে দেশের জন্য সবচেয়ে জরুরি কাজ, অপরদিকে ক্রমেই খারাপ হতে থাকা শরীর। মিনাল কিন্তু হাল ছাড়েননি। কিট নিয়ে একনাগাড়ে পরীক্ষা করে গেছেন। আর তাতেই প্রথমবারের মতো সম্পূর্ণ ভারতে তৈরি কোন কিট পাওয়ার সাফল্য দেখাল।

মিনাল মহারাষ্ট্রের পুনের মাইল্যাব ডিসকভারির গবেষণা ও উন্নয়ন প্রধান। তিনি একজন ভাইরোলজিস্ট, ভাইরাস নিয়ে কাজ তার। এই প্রথম ভারতীয় কোনো প্রতিষ্ঠান হিসেবে মাইল্যাব করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য কিট বানিয়ে বাজারজাত করার অনুমতি পেয়েছে। গত বৃহস্পতিবার তাদের কিট বাজারে পৌঁছে গেছে। প্রথমে প্রতিষ্ঠানটি পুনে, মুম্বই, দিল্লি, গোয়া ও বেঙ্গালুরুতে ১৫০টি কিট পাঠিয়েছে।

আর এই খবর মিনাল শুনেছেন হাসপাতালের বেডে শুয়ে, কোলে কন্যা সন্তানকে নিয়ে। স্বভাবতই সন্তান জন্মের পাশাপাশি দেশের জন্য এত জরুরি এক আবিষ্কার করায় প্রচন্ড খুশি তিনি।

জানা গেছে, শরীর ক্রমেই খারাপ হওয়ায় ফেব্রুয়ারির শেষেই হাসপাতালে ভর্তি হন অন্তঃসত্ত্বা মিনাল। দিন কয়েক হাসপাতালে থেকে ফের শুরু করেন গবেষণার কাজ। ১৮ মার্চ তারা চূড়ান্ত গবেষণা রিপোর্ট-সহ কিট জমা করেন। ওই দিনই হাসপাতালে ভর্তি হন মিনাল। পরের দিন জন্ম দেন কন্যাসন্তানের।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0727 seconds.