• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৯ মার্চ ২০২০ ১৮:২৩:২৬
  • ২৯ মার্চ ২০২০ ১৮:২৩:২৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

হোটেলে আইসোলেশনে থাই রাজা, সঙ্গে ২০ নারী

ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাস সতর্কতায় জার্মানিতে এক বিলাসবহুল হোটেলে ‘সেল্ফ আইসোলেসনে’ আছেন থাইল্যান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন। এই সময় তার সঙ্গে আছেন ২০ জন হারেম বা ‘রক্ষিতা’ এবং আছেন কর্মচারীও। তবে ৬৭ বছর বয়সী থাই রাজার সঙ্গে তার চার স্ত্রীর কেউ আছে কিনা তা জানা যায়নি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইনডিপেন্ডেন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোনেনবিচল নামে একটি চার তারকা বিলাসবহুল হোটেল পুরোটা ভাড়া করেন রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন।

তবে রাজার সঙ্গে থাকা ১১৯ জন সদস্যকে শ্বাসকষ্টজনিত রোগ সংক্রমণের কারণে থাইল্যান্ডে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

একজন থাই নাগরিক দাবি করেন, রাজা ভাজিরালংকর্ন ছুটি কাটাতে জার্মানি গিয়েছেন এবং এই সময়ের মধ্যেই থাইল্যান্ডে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ে।

এই কথা ছড়িয়ে পড়ায় রাজার ওপর চরম খেপেছেন থাইল্যান্ডের বাসিন্দারা। কিন্তু থাইল্যান্ডে রাজাকে অপমান ও সমালোচনা করলে তাকে ১৫ বছরের জেল দেওয়ার বিধান রয়েছে। সেই আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দেশটির হাজার হাজার নাগরিক সামাজিক মাধ্যমে এর কড়া সমালোচনা করেছেন।

ইতিমধ্যে দেশটির টুইটারে ‘#হোয়াই ডু উই নিড অ্যা কিং’ (আমাদের কেন রাজা প্রয়োজন) লিখে প্রতিবাদের রব উঠেছে। যা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১২ লাখ বার টুইটারে পোস্ট হয়েছে।

উল্লেখ্য, থাইল্যান্ডে প্রায় ১৪শ মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে এবং সাতজন এ ভাইরাসে মারা গেছেন।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0590 seconds.