• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ৩১ মার্চ ২০২০ ২২:৫৬:২১
  • ৩১ মার্চ ২০২০ ২২:৫৭:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

জ্বর-কাশি-শ্বাসকষ্ট, বাড়ি ফিরে নারীর মৃত্যু

ফাইল ছবি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মাংগো বারোয়ার (৫৫) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) বসনইল প্যারাপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি স্থানীয় ওঁরাও জনগোষ্ঠির সদস্য।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মজিবুর রহমান জানান, বাইরে থেকে জ্বর-কাশি নিয়ে এসে মাংগো মারা গেছেন। এ কারণে তিনি প্রশাসন ও পুলিশের কাছে খবর দেন। এরপর গোমস্তাপুর থানা-পুলিশ ও গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লোকজন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা মৃত নারীর আত্মীয়স্বজন ও এলাকার লোকদের কাছ থেকে জানতে পারেন, ওই নারীর যক্ষ্মা রোগ ছিল। তাই তাকে সমাধিস্থ করার নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর এলাকাবাসী বিকেলে ওই নারীকে সমাধিস্থ করে।

এর আগে মাংগো বারোয়ার কৃষিকাজ করতে গ্রামের কয়েকজনের সঙ্গে রাজশাহীর তানোর উপজেলায় যান। ১১ দিনের কাজে শেষে বাড়ি ফেরার পর তার মৃত্যু হয়। তার সঙ্গে কাজে যাওয়া বাকীকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ। এ কারণে এলাকায় মানুষের মনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়ছে। অনেকে ভয়ও পাচ্ছেন।

এলাকাবাসী জানান, মাংগোর সঙ্গে যারা কাজে গিয়েছিলেন তারা কোয়ারেন্টিন মানছেন কি না, তা তদারক করা দরকার। তাদের উপসর্গ দেখা দিলে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করা দরকার।

এ বিষয়ে গোমস্তাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আইনুল হক বলেন, তারা মাংগোর পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলেছেন। জানতে পেরেছেন, ১১ দিন আগে রাজশাহীর তানোরের কালীগঞ্জ এলাকায় খেতের আলু তোলার কাজে গিয়েছিলেন মাংগো ও তার মেয়েসহ ১১ জন নারী-পুরুষ। দুই দিন আগে মাংগো জ্বরে আক্রান্ত হন। গত সোমবার সকালে তারা এলাকায় ফিরে আসেন।

পরিবারের বরাত দিয়ে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, মাংগোর যক্ষ্মা ছিল। শ্বাসকষ্টেও ভুগছিলেন বহুদিন থেকে। কিন্তু এখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সময়। এজন্য তার সঙ্গে কাজে যাওয়া অন্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সারোয়ার জাহান বলেন, ‘স্থানীয় একটি কমিউনিটি ক্লিনিকে মাংগো গত ২৯ ফেব্রুয়ারি ও ৯ মার্চ শ্বাসকষ্টের চিকিৎসা নেন। করোনাভাইরাসে তার মৃত্যু হয়নি বলেই আমরা মনে করি। তবু এখন সময়টা খারাপ। তাই মাংগোর সঙ্গে কাজে ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়েছে।’’

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0739 seconds.