• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৮ এপ্রিল ২০২০ ১১:২৮:০৮
  • ০৮ এপ্রিল ২০২০ ১১:২৮:০৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের নাতিই এখন উপজেলা ছাত্রলীগের সম্পাদক!

ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদ ও তার নাতি মুজিব উল্যাহ পলাশ বিশ্বাস। ছবি : সংগৃহীত

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিব উল্যাহ পলাশ বিশ্বাস জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান হত্যায় ফাঁসির আসামি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদের নাতি। তিনি এ পদ পাওয়ার পরই এলাকায় ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হলে কমিটি স্থগিত করা হয়। কিন্তু প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে ওই কমিটি পুনরায় বহাল করে জেলা ছাত্রলীগ। সেইসাথে তাদের পরিবারের এক নারী সরকারি চাকরিও পেয়েছিলেন।

গতকাল ৭ এপ্রিল, মঙ্গলবার ঢাকায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এরপরই বিষয়টি বোরহানউদ্দিনে ফের আলোচনায় এসেছে। স্থানীয়দের দাবি, যারা মুজিব উল্যাহ পলাশ বিশ্বাসকে ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ পেতে সহায়তা করেছেন তাদের মুখোশ উন্মোচন করার। যারা দীর্ঘদিন ধরে বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের পরিবারকে পৃষ্ঠপোষকতা করে যাচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিরও দাবি করছেন তারা। 

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের কাছে প্রথমে পলাশ বিশ্বাসের কমিটি দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রিয়াজ মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘‘এ কমিটি আমরা দেইনি। আমরা কিছু করতে পারি না।’ তবে দ্বিতীয়বার কল দেয়া হলে রিয়াজ মাহমুদ বলেন, ‘মুজিব উল্যাহ পলাশ খুনি মাজেদের নাতি না।’ তবে ‘কোটা লাগাইন্না নাতি’ হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এরপর উল্টো এ বিষয়ে জানতে চাওয়া সাংবাদিককে ধমক দিয়ে রিয়াজ বলেন, ‘আমরা কমিটি দিছি আমরা জানি না। আপনি কী জানেন?’

তবে কিভাবে বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের নাতি ভোলা উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ পেয়েছেন এ বিষয়ে অন্ধকারে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতারা। এ বিষয়টি দুঃখজনক উল্লেখ করে ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান জয় জানিয়েছেন, পলাশকে যারা নেতা বানিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা দুপুরে এ তথ্য পেয়েছি। এটি খুবই দুঃখজনক। আমাদের সময় কমিটির আগে সে নেতা হওয়ায় আমরা বিস্তারিত জানি না। এখন খবর নেয়া হচ্ছে। এ ঘটনার সঙ্গে কে কে জড়িত তা আমরা খুঁজে বের করব। তাদের শাস্তির আওতায় আনব।’

গতকাল ৭ এপ্রিল, মঙ্গলবার ভোরে রাজধানীর গাবতলীতে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন বঙ্গবন্ধু হত্যায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদ। তাকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের নির্দেশে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। ভারতে লুকিয়ে আছেন বলে সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন সময় সংবাদ প্রকাশিত হলেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতের নাগালের বাইরেই ছিলেন তিনি।

বাংলা/এসএ

 

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0763 seconds.