• ফিচার ডেস্ক
  • ১৮ এপ্রিল ২০২০ ২১:০৩:২৪
  • ১৮ এপ্রিল ২০২০ ২১:০৩:২৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ভিটামিন সি করোনা ঠেকায় না, তবে...

ছবি : সংগৃহীত

ফ্লু বা জ্বর-সর্দি, কাশি ঠেকাতে ভিটামিন সি-এর ভূমিকা আছে বলে অনেকে দাবি করলেও ধারণাটি সঠিক নয়। কারণ ভিটামিন সি সাধারণ ফ্লু ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকায় না। তবে রোগ হওয়ার পর তার প্রকোপ কম রাখতে সাহায্য করে। সাহায্য করে ভোগান্তির সময়কাল কমাতেও।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) যেহেতু এক ধরনের ফ্লু, মানুষ তাই ভাবতে শুরু করেছেন, ভালো করে ভিটামিন সি খেলে একে ঠেকানো যেতে পারে।

এই ভাবনাটাকেই আরো উসকে দিয়েছে সাংহাই মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের তরফ থেকে চাইনিজ জার্নাল অব ইনফেকশাস ডিজিজ-এ প্রকাশিত এক প্রবন্ধ, যেখানে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, কোভিড-১৯ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীকে শিরার মাধ্যমে বেশি মাত্রায় ভিটামিন সি দেয়া যায়, তাহলে তার ফুসফুসের কার্যকারিতা কিছুটা বাড়ার সম্ভাবনা আছে। এবং তাতে কৃত্রিম শ্বাসযন্ত্র তথা ভেন্টিলেটরের প্রয়োজন কিছুটা কমতে পারে।

এই কিছুটা মানে কতটুকু? এক রিভিউ স্টাডি থেকে জানা যায়, এ ক্ষেত্রে রোগীর ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে থাকার প্রয়োজনীয়তা ৮ শতাংশ কমতে পারে। আর ভেন্টিলেটরের প্রয়োজন কমতে পারে ১৮ শতাংশ। তবে এ সবই রয়েছে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে। অর্থাৎ, ভিটামিন সি দিয়ে চিকিৎসা করলে কতটা কাজ হবে, তা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

অন্য একটি সমীক্ষা থেকে জানা যায়, শিরার মধ্যে দিয়ে বেশি মাত্রায় ভিটামিন সি দিলে সোয়াইন ফ্লু ও অন্য আরও কিছু ভাইরাস সংক্রমণে ফুসফুসে যে প্রদাহ হয় তার প্রকোপ কিছুটা কমতে পারে। এই স্টাডিও রয়েছে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে। অর্থাৎ, পশুর পর এখন মানুষের শরীরে প্রয়োগ করে এর ভালোমন্দ যাচাই করা হচ্ছে। তবে কোভিডের ক্ষেত্রেও সে একই ভাবে কাজ করবে কিনা সে গবেষণা এখনো সে ভাবে হয়নি।

ভারতীয় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায় চিকিৎসক এ প্রেক্ষিতে বলেন, কাজেই এ রকম পরিস্থিতিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি খাওয়ার কোনো যুক্তি নেই। কারণ খেয়াল করে দেখুন, গবেষণাপত্রে কিন্তু খাওয়ার কথা বলা হয়নি। বলা হয়েছে শিরার মাধ্যমে দেওয়ার। তা-ও হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীকে। কাজেই ভিটামিন সি অবশ্যই খাবেন। তবে মাপমতো। বেশি খেলে ইউরিনের মধ্যে দিয়ে তা বেরিয়ে যাবে। উল্টো পেট খারাপ হতে পারে।

কতটা ভিটামিন সি দরকার এবং কিভাবে পাবেন

সুষম খাবারের হিসেবে প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দিনে ৯০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি দরকার। ধূমপায়ী হলে বা বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়ালে আরও ৩০-৩৫ মি গ্রা বেশি প্রয়োজন। মাঝারি একটা কমলালেবু খেলেই প্রয়োজনের ৭৭ শতাংশ পূরণ হয়ে যায়। এক কাপ রান্না করা ব্রকোলি খেলে পাওয়া যায় প্রায় ১১০ শতাংশ। তবে অন্য শাক-সবজি-ফলেও ভিটামিন সি আছে।

ভাতের পাতে স্রেফ একটা কাঁচা মরিচে ১২১ শতাংশ। একটা পেয়ারা খেলে পাবেন ১৪০ শতাংশ, আধকাপ হলুপ বেলপেপার দেবে ১৫২ শতাংশ। সকালে খালি পেটে পাতিলেবুর রস খাওয়ার অভ্যাস থাকলে সারা দিনের প্রয়োজনের ৯০ শতাংশ, ওখান থেকেই চলে আসবে।

কাজেই ভিটামিন সি নিয়ে আলাদা করে ভাবার দরকার নেই। ওটুকুতেই আপনার রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অটুট থাকবে, যার সাহায্যে এই দুর্দিনে লড়াই চালাবেন আপনি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ভিটামিন সি করোনাভাইরাস

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0822 seconds.