• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৮ এপ্রিল ২০২০ ২২:২৬:২২
  • ২৮ এপ্রিল ২০২০ ২২:২৬:২২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ফ্রিজে কতদিন বাঁচে করোনাভাইরাস?

ছবি : সংগৃহীত

চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি WHO (World Health Organization) থেকে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়, মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে অন্যান্য করোনাভাইরাসগুলো কমপক্ষে দুই বছরের জন্য বেঁচে থাকতে পারে।

অন্য আরো বেশ কিছু সমীক্ষা থেকে জানা যাচ্ছে, SARS-CoV এবং MERS-CoV এর মতো ভাইরাসগুলো তাপমাত্রা, আর্দ্রতা এবং আলো ইত্যাদির ভিত্তিতে কিছু দিনের জন্য বসবাস করতে পারে। রিপোর্টগুলোতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, ফ্রিজের তাপমাত্রা অর্থাৎ ৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে MERS-CoV কমপক্ষে ৭২ ঘণ্টা অর্থাৎ তিন দিনের জন্য সক্রিয় অবস্থায় থাকতে পারে।

তবে সম্প্রতি সংবাদমাধ্যম NBC Bay Area-এ একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, অপেক্ষাকৃত কম তাপমাত্রায় অর্থাৎ ফ্রিজের ভেতরে যে তাপমাত্রা সেখানে কমপক্ষে ২৮ দিন টিকে থাকতে পারে SARS-CoV ভাইরাস। আর এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে, ২০১০ সালের আমেরিকান সোসাইটি ফর মাইক্রোবাইলজি-র (American Society For Microbiology) একটি গবেষণার ভিত্তিতে।

তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতার হেরফেরে SARS করোনাভাইরাস যা COVID-19 ভাইরাসের (SARS-CoV-2) সঙ্গে অঙ্গাঙ্গি ভাবে জড়িত, তার উপর রিসার্চ চালিয়ে দেখা হয়েছে আমেরিকান সোসাইটি ফর মাইক্রোবাইলোজির তরফে। সেখানে বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন যে, কম আর্দ্রতর এবং ৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইটের (৪.৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড) কম তাপমাত্রায় করোনাভাইরাস আরও সতেজ হয়ে ওঠে। ঠিক যে তাপমাত্রা থাকে ফ্রিজের ভিতরে।

এ ছাড়াও সংবাদমাধ্যম NBC Bay Area-কে দেয়া একটি সাক্ষাৎকারে বিশ্ববিখ্যাত ভাইরোলজিস্ট ও গবেষণা বিজ্ঞানী ডক্টর ওয়ার্নার গ্রিনে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য জানিয়েছেন। ডক্টর গ্রিনের দাবি, ‘করোনাভাইরাসের প্রকৃতি কিছুটা স্যাঁতস্যাতে ধরনের। নানা তলে বেশ কিছু সময়ের জন্য বেঁচে থাকতে পারে এই ভাইরাস।’

২০১০ সালের আমেরিকান সোসাইটি ফর মাইক্রোবাইলজি-র করা ওই গবেষণার সঙ্গে ছিলেন না ডক্টর গ্রিনে। তবে তিনিও ওই গবেষণায় উঠে আসা তথ্যের সঙ্গে কিছুটা একমত।

ডক্টর গ্রিনের কথায়, ‘আসল বিষয়টা হচ্ছে কখনও বাজার বা দোকান থেকে কিনে আনা যে কোনও বস্তু ফ্রিজে ভরতে হলে আগে সেটাকে খুব ভালো করে জীবাণুমুক্ত করা উচিত।’

প্রতিকারের উপায় -

প্রথমেই মাথায় রাখতে হবে, বাজার থেকে আনা জিনিসপত্র ভালো করে জীবাণুমুক্ত করেই ফ্রিজে ঢোকাতে হবে। এ ছাড়াও ফ্রিজের জিনিসপত্রকে করোনাভাইরাস থেকে বাঁচাতে কিছু উপায় বাতলে দিলেন ডক্টর গ্রিনে।

একটি বালতিতে অ্যালকোহল যুক্ত কোনো স্যানিটাইজারের সাহায্যে জীবাণুমুক্ত করার তরল তৈরি করতে হবে।

গ্রিনের কথায়, 'করোনাভাইরাস সম্পূর্ণরূপে দ্রবীভূত করতে প্রয়োজন অ্যালকোহল বা সাবান এবং পানি। ৪ লিটার পানির সঙ্গে ১/৩ কাপ ব্লিচ মিশিয়ে মিশ্রণটি তৈরি করে নিন। এই উপায় না পেলে গরম পানির কিছুটা সাবান ফেলে দেয়ার কথাও বলছেন গ্রিনে।

এবার এই মিশ্রণে একটি শুকনো তোয়ালে ভালো করে ভিজিয়ে নিতে হবে।

এবার ফ্রিজে যে খাবারের বাক্স বা প্যাকেটগুলো রাখবেন খুব ভালো করে সেগুলোকে ওই তোয়ালে দিয়ে বেশ ভালো করে কয়েকবার পরিষ্কার করতে হবে।

এখানেই শেষ নয়। প্রতিনিয়ত নিয়ম করে ফ্রিজের কন্টেনারগুলিকে জীবাণুমুক্ত করে যেতে হবে এই পদ্ধতিতেই।

প্রতিবার জীবাণুমুক্ত করার পর ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে হাত। ধুয়ে ফেলতে হবে বাজারের ব্যাগটাও।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

করোনাভাইরাস

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0773 seconds.