• বাংলা ডেস্ক
  • ০৪ মে ২০২০ ১০:১৭:২৯
  • ০৪ মে ২০২০ ১০:১৭:২৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

যে কারণে পুরুষরাই বেশি হারে করোনায় আক্রান্ত

ফাইল ছবি

বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক হিসেবে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নভেল করোনাভাইরাস। এবার সেই ভাইরাসটি কীভাবে মানব দেশে কাজ করে সেই ‘মেকানিজম’ আবিস্কারের দাবি করেছেন এক ইতালীয় বিজ্ঞানী। বিশেষ করে কেন এই ভাইরাসটি পুরুষদের আক্রমণ করে বেশি হারে দুর্বল করে ফেলছে- সেই সূত্রটিও এর মধ্যদিয়ে ধারণা করা যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সম্প্রতি ইতালির পেরুজিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাস করা এক ফার্মাসিস্ট চিউসোলো এক গবেষণা প্রবন্ধে এ বিষয়ে বিস্তারিত লিখেন। তার সেই তত্ত্বটি প্রকাশ করে দেশটির দৈনিক ইল টেম্পো, ইল জিওরোনালসহ শীর্ষ সংবাদপত্রগুলো।

বিষয়টির ব্যাখ্যা করে চিউসোলো জানান, কোভিড -১৯ ভাইরাসটি রোগীদের শরীরে হিমোগ্লোবিনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, রক্তে অক্সিজেন পরিবহনের জন্য লোহিত রক্তকণিকার ক্ষমতাকে ক্ষুণ্ন করে এবং ফুসফুসকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, যার ফলে তীব্র শ্বাসকষ্টের লক্ষণ দেখা দেয়।

এ গবেষণাটি সঠিক প্রমাণিত হলে তা নভেল করোনভাইরাসের অনেক অজ্ঞান প্রশ্নের সুরাহা মিলবে। যেমন- বেশি হারে পুরুষদের আক্রান্ত হওয়ার কারণ – বিশেষ করে পুরুষ ডায়াবেটিস রোগীরাই কেন এতে আক্রান্ত হওয়ার পর গুরুতর অবস্থায় চলে যান। এছাড়া গর্ভবতী নারী এবং শিশুরাই বা কেন কম হারে আক্রান্ত হচ্ছে সেটিও উদ্ঘাটিত হবে।

এই প্রক্রিয়াটি পরিস্কার হলে ভাইরাসটির চিকিৎসার জন্য সবচেয়ে কার্যকর ওষুধগুলো দ্রুত আবিষ্কারের পথও পাওয়া যাবে।

জেরুজালেম পোস্টকে গবেষক চিউসোলো বলেন, ‘নভেল করনাভাইরাসের বেঁচে থাকা এবং বংশ বৃদ্ধির জন্য সম্ভবত পোরফায়ারিনের প্রয়োজন আছে, যেটা হিমোগ্লোবিনে থাকে। তাই এটি হিমোগ্লোবিনকে আক্রমণ করে। আর হিমোগ্লোবিন রক্তে অক্সিজেন বহনকারী প্রোটিন। করোনাভাইরাসের আক্রমণে এটা কম অক্সিজেন সরবরাহ করে। ফলে দেহে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফুসফুসের কোষগুলো সাইটোকাইন ক্যাসকেডের স্থানে পরিণত হয়, এটি ভাইরাসটিকে আটকানোর জন্য প্রচুর পরিমাণে প্রতিরোধ ক্ষমতা ব্যয় করে, যা তীব্র ফুসফুস প্রদাহের জন্য দায়ী। ফলে রোগীর শ্বাসকষ্ট হয়।’

তিনি আরো জানান, রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ভাইরাসটির  সংক্রমণের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পরামিতি হতে পারে। নারীদের তুলনায় পুরুষদের শরীরে স্বাভাবিকভাবেই হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ বেশি হয়। এটি নারীদের চেয়ে পুরুষদের বেশি কোভিড -১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার কারণ হতে পারে।

একই কারণে শিশু এবং গর্ভবতী নারীদের ভাইরাসটি কম আক্রমণ করে উল্লেখ করে তিনি জানান, গর্ভবতী নারীদের অধিক আয়রনের প্রয়োজন হওয়ায় তাদের শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কমে যায়। যে কারণে ভাইরাসটির জন্য কম পুষ্টি থাকে।

বাংলা/এসএ/

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0703 seconds.