• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৪ মে ২০২০ ২১:০২:৩৩
  • ০৪ মে ২০২০ ২১:০২:৩৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

করোনার ভয়ে ৩ লাখ মানুষ ধূমপান ছেড়েছেন

ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে ধূমপায়ী রোগীরা বেশি জটিলতায় পড়ার সম্ভাবনা থাকে। শ্বাসতন্ত্রের রোগের সঙ্গে ধূমপানের সমানুপাতিক সম্পর্ক থাকার প্রমাণ আগের বেশ কয়েকটি গবেষণায় পাওয়া গেছে। কোভিড-১৯ রোগটিও শ্বাসতন্ত্রের এবং ধূমপায়ীদের ক্ষেত্রে রোগের মাত্রা কঠিন হওয়ার অনেকগুলো দৃষ্টান্ত রয়েছে। ফলে ধূমপায়ীদের মধ্যে ভীতিও বাড়ছে।

এদিকে এক জরিপে দেখা গেছে, ব্রিটেনে করোনার ভয়ে তিন লাখেরও বেশি মানুষ ধূমপান ছড়ে দিয়েছেন।

ইউগোভ এবং ধূমপান বিরোধী ক্যাম্পেইন গ্রুপ অ্যাকশন অন স্মোকিং হেলথের (অ্যাশ) যৌথ জরিপে আরো উঠে এসেছে, আরো ৫ লাখ ৫০ হাজার মানুষ এরই মধ্যে ধূমপান ছেড়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন। অবশ্য তাদের মধ্যে কতোজন সফল হয়েছেন তা জানা না গেলেও ২৪ লাখ ধূমপায়ী ধূমপান কমিয়ে দিয়েছেন এটা মোটামুটি নিশ্চিত করে বলা যেতে পারে।

দ্য গার্ডিয়ান’এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১ হাজার ৪ জনের মধ্যে এ জরিপ পরিচালনা করা হয়। এই নমুনার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে মোট ধূমপায়ী জনসংখ্যা সম্পর্কে আনুমানিক হিসাব করা হয়েছে। জরিপে অংশগ্রণকারীদের ২ শতাংশ জানিয়েছেন করোনাভাইরাসের কারণে তারা ধূমপান ছেড়ে দিয়েছেন। ৮ শতাংশ ধূমপান ছাড়ার চেষ্টা করেছেন; ৩৬ শতাংশ ধূমপান কমিয়ে দিয়েছে আর ২৭ শতাংশ বর্তমানে ছেড়ে দেয়ার পর্যায়ে আছেন।

অ্যাশের চেয়ারম্যান ড. নিক হপকিন্স ইমপেরিয়াল কলেজ লন্ডনের একজন শ্বাসতন্ত্র বিশেষজ্ঞ। তিনি বলেন, ধূমপান রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা এবং সব ধরনের সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার সক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। হাসপাতালে ভর্তি কভিড-১৯ এর রোগীদের মধ্যে ধূমপায়ীদের অবস্থা বেশি খারাপ হচ্ছে- এমন তথ্য-উপাত্ত দিন দিন বাড়ছে।

তিনি আরো বলেন, ধূমপান ছেড়ে দিলে হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের মতো স্বাস্থ্য ঝুঁকি হ্রাসের সম্ভাবনা দ্রুত বাড়ে। বিশেষ করে এই মুহূর্তে এ অভ্যাস ছেড়ে দেয়া জরুরি।

প্রসঙ্গত, ২০৩০ সালের মধ্যে জাতিকে ধূমপানমুক্ত করার এক উচ্চাভিলাসী লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে ব্রিটেনের সরকার।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0753 seconds.