• ফিচার ডেস্ক
  • ০৮ মে ২০২০ ২২:৫৫:৫৮
  • ০৮ মে ২০২০ ২২:৫৫:৫৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

বয়স্কদের খাদ্য তালিকায় রাখুন এই ৬টি খাবার

ছবি : সংগৃহীত

আমরা জানি বয়স বাড়ার সাথে শরীরে নানা ধরণের অসুখ বিসুখ বাসা বাঁধতে শুরু করে। এ কারণে পরিবারের বয়স্ক মানুষদের খাবার দাবারের প্রতি আমাদের অধিক সচেতন হতে হবে। তাছাড়া করোনা ভাইরাসের এ মহামারীর সময়ে বয়স্কদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলার ব্যাপারেও আমাদের সচেতন হতে হবে।

এজন্য নিচের ৬টি খাবার বয়স্কদের খাদ্য তালিকায় আপনি নিশ্চিন্তে রাখতে পারেন।

১. তৈলাক্ত মাছ :

স্যামন, ম্যাকারেল এবং সারডাইনের মতো সামুদ্রিক মাছ রাখতে পারেন খাদ্য তালিকায়। কারণ এর ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডে বেশি থাকে। এই চর্বিযুক্ত মাছগুলো প্রদাহ প্রতিরোধে সহায়তা করে যা ক্যান্সার, বাত এবং হৃদরোগ হতে রক্ষা করে।

২. দই :

দই, দুধ এবং পনিরসহ দুগ্ধজাত খাবারে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে যা হাড়কে শক্তিশালী করতে সহায়তা করে।

বয়সের সাথে সাথে লোকেরা কম ক্যালসিয়াম গ্রহণ করে থাকে। যদি শরীরে সঠিক পরিমাণে ক্যালসিয়াম না পাওয়া যায় তবে অস্টিওপরোসিসের মতো হাড়ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে।

এছাড়াও দই গ্রীষ্মের সময় শরীরকে শীতল রাখতে সহায়তা করে এবং পানিশূন্যতা থেকে বাঁচায়।

৩. টমেটো :

লাইকোপিনের পরিমাণ বেশি থাকায় টমেটো প্রস্টেট ক্যান্সারের বিরুদ্ধে প্রবীণদের রক্ষা করে থাকে। এবং সেই সাথে ফুসফুসের ক্যান্সারের সম্ভাবনাও কমিয়ে দেয় বলে ব্রিটিশ জার্নাল অফ ক্যান্সারে প্রকাশিত একটি গবেষণা বলেছে।

টমেটো স্যুপ, জুস তাই রাখতে পারেন পরিবারের খাবারের তালিকায়।

৪. বাদাম :

বিভিন্ন ধরনের বাদাম যেমন কাজু, চিনাবাদাম, আখরোট জাতীয় বাদামে ফাইবার, প্রোটিন, ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ এবং ওমেগা -৩ পরিপূর্ণ থাকে। এটা হৃদরোগের জন্য উপকারি।

তাছাড়া বার্ধক্যকালেও এটি দৃষ্টি ভাল রাখে এবং চোখের ছানির বিরুদ্ধে লড়াই করে থাকে।

৫. আপেল :

'প্রতিদিন একটি আপেল আপনাকে ডাক্তারের কাছ থেকে দূরে রাখে’ এই কথাটি সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। বৃদ্ধ বয়সে আপেল রক্তে শর্করার মাত্রা বজায় রাখতে সহায়তা করে এবং কোলেস্টেরলকে কমিয়ে রাখে। কারণ আপেলে থাকা ফাইবার কোলেস্টেরল কমাতে এবং গ্লুকোজ গ্রহণকে ধীর করতে সহায়তা করে।
এছাড়াও পটাসিয়াম, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি পেয়ে থাকি আমরা আপেল থেকে।

৬. ডার্ক চকোলেট :

ডার্ক চকোলেটগুলো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পূর্ণ। এটি হার্ট অ্যাটাক, রক্তচাপ কমাতে এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করতেও সহায়তা করতে পারে।

এছাড়াও এতে থাকা ফ্ল্যাভ্যানল অনিদ্রা দূর করে।

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0687 seconds.