• ফিচার ডেস্ক
  • ১০ মে ২০২০ ২০:৫৯:০১
  • ১০ মে ২০২০ ২০:৫৯:০১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

রাগ ও হতাশা তাড়াতে কার্যকর ৪ উপায়

ছবি : সংগৃহীত

চিমনিতে জ্বলতে থাকা কয়লার ধোঁয়া বের হবার সুযোগ না দিলে তা যেমন যে কোন বিস্ফোরিত হতে পারে তেমনিভাবে রাগ ও হতাশা যদি আমাদের মনের মধ্যে জমতেই থাকে তাহলে সেটাও একসময় এভাবে আমাদের মনের মধ্যে ঝড় তুলতে পারে। বিস্ফোরণের মতো তারও খারাপ বহিঃপ্রকাশ হতে পারে।

রাগ ও হতাশা থেকে রক্ষা পেতে এবং নিজেকে হালকা করার জন্য আসুন স্বাস্থ্যকর ৪টি উপায় নিয়ে আমরা কথা বলি।

১. ব্যায়াম করুন :

রাগ এবং হতাশা তাড়ানোর জন্য ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রমের এর চেয়ে ভাল কিছুই আর হয় না। এন্ডোরফিন, হ্যাপি হরমোন নামে যা পরিচিত তার বৃদ্ধিতে ব্যায়াম খুবই কাজে দেয়। শরীরে স্ট্রেস হরমোন কমাতেও ব্যায়াম দারুণ কার্যকরী।

এমনকি মাত্র ১৫ মিনিটের একটি ওয়ার্কআউট আপনার হতাশা এবং ক্ষোভকে ইতিবাচক উপায়ে প্রকাশ করতে সহায়তা করতে পারে।

২. একটি থামুন এবং শ্বাস নিন :

আপনি খেয়াল করলে দেখবেন যে আমরা সবাই খুব রাগের মধ্যেই সবচেয়ে খারাপ কথাগুলো বলে ফেলি এবং পরে আমাদের আচরণের জন্য অনুশোচনা করে থাকি। আপনার কোন কিছু নিয়ে আফসোস বা ক্ষোভ হতাশাকে আরো বাড়িয়ে দিতে পারে এবং পরিস্থিতি আরো খারাপ করে তুলতে পারে।

সুতরাং, ক্ষোভ এবং নেতিবাচক অনুভূতিগুলো ছাড়ার জন্য তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া প্রকাশ থেকে বিরত তাকতে হবে। এজন্য গভীরভাবে শ্বাস নিন। নিজের অনুভূতি প্রকাশের আগে নিজেকে শান্ত করুন।

এতে আপনি অহেতুক রাগের পরিবর্তে দেখবেন একটি সুন্দর যুক্তি খুঁজে পেয়ে যাবেন এবং এর ফলাফল আপনার কেসটিকে আরো খারাপ করার পরিবর্তে উন্নত করতে পারে।

৩. বন্ধুর সাথে যথাযথ কথোপকথন করুন :

মিসৌরি ইউনিভার্সিটিতে পরিচালিত গবেষণায় দেখা গেছে যে বন্ধুদের সাথে অনুভূতি ভাগাভাগি করে নিলে আপনার ভেতরে জমে থাকা রাগ, হতাশাকে তা উড়িয়ে দিতে সহায়তা করতে পারে। এটি নেতিবাচক অনুভূতি তাড়াতে এবং যুক্তিপূর্ণ চিন্তার বহিয়ঃপ্রকাশেও উৎসাহ দিতে পারে।

তাই আপনার বিশ্বস্ত বন্ধুর সাথে আপনার অনুভূতি সম্পর্কে আলোচনা করুন, যাকে আপনি মনে করেন যে তিনি আপনাকে সঠিক দিকে পরিচালিত করতে পারেন।

৪. আপনার অনুভূতি লিখে রাখুন :

যদি আপনি বিশ্বস্ত কাউকে সেভাবে না পান তাহলে তা লিখে রাখুন। আপনার ডায়েরিতে আপনার সবচেয়ে সৎ অনুভূতি লিখুন।

পরে আপনার রাগ কমে গেলে পরে ডায়েরিটি পড়তে পারেন। এটি আপনাকে বুঝতে সাহায্য করবে যে আপনার হতাশার কারণ কি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

রাগ হতাশা

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.1041 seconds.