• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৫ মে ২০২০ ১২:০২:১৫
  • ১৫ মে ২০২০ ১২:০৩:২১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

রবিবার ফিরছেন যুক্তরাষ্ট্রে আটকে পড়া ২৪৭ বাংলাদেশি

ফাইল ছবি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীতে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে আটকে পড়েছে ২৪৭ জন বাংলাদেশি। এমতাবস্তায় এসব নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়ে সরকার। ১৭ মে, রবিবার ভোরে তাদের নিয়ে একটি বিশেষ বিমান দেশে পৌঁছাবে।

তাদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, পর্যটন ও ব্যবসায় ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিক এবং কিছু সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা রয়েছেন। ওয়াশিংটনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এই তথ্য নিশ্চিত করে।

বাংলাদেশ দূতাবাস জানায়, ওয়াশিংটন ডুলস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (আইএডি) থেকে ১৫ মে, শুক্রবার বাংলাদেশের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রবিবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টায় অবতরণ করবে।

যুক্তরাষ্ট্রে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য ৪ মে কাতারের বিমান সংস্থার বিমানটি চার্টার্ড করেছিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর আগে ৩০ মার্চ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস এবং নিউইয়র্ক ও লস অ্যাঞ্জেলেসের দুই কনস্যুলেটে তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের কাছ থেকে তথ্য চেয়ে একটি নোটিশ প্রচার করে। এতে বিপুল সংখ্যক আটকে থাকা বাংলাদেশি নাগরিক তাদের নিজস্ব ব্যয়ে একটি বিশেষ চার্টার্ড ফ্লাইটে বাংলাদেশে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করে।

বাংলাদেশ মিশনগুলোতে ৩০ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ই-মেইলের মাধ্যমে তাদের তথ্য সরবরাহ করেন। তারা বাংলাদেশ মিশনগুলোর মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারকে একটি বিশেষ বিমানের মাধ্যমে তাদেরকে ফিরতে সহায়তা অনুরোধ করেন।

কাতার এয়ারলাইন্সের বিশেষ চার্টার্ড (এ ৩৫০-৯০০) এয়ারবাসটি ১৬ মে সন্ধ্যা ৭টায় দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সেখানে এক ঘণ্টা বিরতির পর বিমানটি স্থানীয় সময় রাত ৮টায় ঢাকার উদ্দেশে দোহা ত্যাগ করবে। এই যাত্রা বিরতিকালে সকল যাত্রীকে বিমানেই অবস্থান করতে হবে বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস।

ঢাকা বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পরে যাত্রীদেরকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ছাড়পত্র বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তাদের কাছে জমা দিতে হবে। সকল যাত্রীকে করোনার উপসর্গমুক্ত মেডিকেল ছাড়পত্র বহন করতে হবে।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0695 seconds.