• বিদেশ ডেস্ক
  • ২০ মে ২০২০ ১১:৪১:৩৬
  • ২০ মে ২০২০ ১১:৪১:৩৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আম্পানের পর আঘাত হানবে যে সব সাইক্লোন

ফাইল ছবি

বাংলাদেশ উপকূলের কাছাকাছি চলে এসেছে সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’। এ কারণে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তবে এই সাইক্লোনের নাম ১৬ বছর আগেই ঠিক করা হয়েছিল। যা আর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আঘাত হানবে দেশে।

‘আম্পান’ শব্দের অর্থ হল আকাশ। ২০০৪ সালে ঘূর্ণিঝড়টির এই নাম দিয়েছিল থাইল্যান্ড। যা বর্তমানে এটি দানবে রূপ ধারণ করেছে। বছর খানেক আগে তৈরি হওয়া ঝড়ের তালিকার এটাই শেষ ঝড়। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যম জিনিউজ।

এর আগে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। এই ঝড়ের নাম দিয়েছিল বাংলাদেশ। এর যার অর্থ হলো সাপ। কীভাবে নামকরণ করা হয় এই ঘূর্ণিঝড়গুলোর? আম্পান পরবর্তী ঝড়গুলোর নামই বা কি হবে?

আসুন জেনে নেয়া যাক এসব প্রশ্নের উত্তর-

পৃথিবীতে প্রতিটি সমুদ্র অববাহিকায় যে ঘূর্ণিঝড়গুলো তৈরি হয়। আঞ্চলিকভাবে বিশেষায়িত আবহাওয়া কেন্দ্র এবং ক্রান্তীয় ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতা কেন্দ্রগুলো দ্বারা এসব ঝড়ের নামকরণ করা হয়। জাতিসংঘের আবহাওয়াবিষয়ক সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ড মেটিরিওলজিকাল অর্গানাইজেশন (ডব্লিউএমও)’ এবং ‘ইউনাইটেড নেশনস ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কমিশন ফর এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক (ইএসসিএপি)’র তালিকাভূক্ত দেশগুলো বিভিন্ন ঝড়ের নাম প্রস্তাব করে।

এই দেশগুলো হলো- ভারত, বাংলাদেশ, মায়ানমার, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, ওমান, শ্রীলঙ্কা এবং থাইল্যান্ডের নাম। এই অঞ্চলে উদ্ভুত ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ এই দেশগুলোই করে থাকে।

ডব্লিউএমও এবং ইএসসিএপি’র ২০১৮ সালে এই তালিকায় আরো পাঁচটি দেশকে যুক্ত করে। এই পাঁচটি দেশ হল ইরান, কাতার, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইয়েমেন। এপ্রিলে প্রকাশিত নতুন তালিকায় ঘূর্ণিঝড়ের ১৬৯টি নাম রয়েছে। সেখানে তালিকায় থাকা ১৩টি দেশের থেকে ১৩টি প্রস্তাবিত নাম হয়েছে।

প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর প্রকাশিত তথ্য মতে, আম্পানের পরবর্তী ঘূর্ণিঝড়গুলোর নাম হলো- নিসর্গ, এই নামের প্রস্তাব করেছে বাংলাদেশ। গতি, প্রস্তাবকারী দেশ করেছে ভারত। নিভার, এর প্রস্তাবক ইরান। বুরেভি, প্রস্তাব করেছে মালদ্বীপ। তৌকতাই, প্রস্তাব করেছে মিয়ানমার। ইয়াস, প্রস্তাব করেছে ওমান।

তবে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো’র কতগুলো শর্ত মেনে এসব ঝড়ের নাম বাছাই করার পর তা প্রস্তাব করতে হয়। শর্তগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো-

১. ঝড়ের নামটি লিঙ্গ, রাজনীতি, ধর্ম এবং সংস্কৃতি নিরপেক্ষ হওয়া চাই।

২. ঝড়ের নামটি যেন কোনো ভাবেই কোনো অনুভূতিতে আঘাত না করে।

৩. ঝড়ের নামটি যেন নিষ্ঠুরতা বা আপত্তিকর কোনো বিষয় না হয়।

৪. ঝড়ের নামটি যেন সংক্ষিপ্ত, সহজে উচ্চারণ করা যায়।

৫. ঝড়ের নামটি অবশ্যই ৮টি বর্ণের (লেটার) মধ্যে হতে হবে।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0878 seconds.