• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৩ মে ২০২০ ১৩:৫৭:৫৭
  • ২৩ মে ২০২০ ১৩:৫৭:৫৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কবর থেকে কিশোরীর দেহ তুলে সহবাসের চেষ্টা, গ্রেপ্তার ১

ছবি : প্রতিকী

ভারতে নদীর ধারে কবর থেকে ১৪ বছরের কিশোরীর মৃতদেহ তুলে ওই দেহের সঙ্গে সহবাসের চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি এ ঘটনায় আকান শইকিয়া নামের (৫০) এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আসামের ধেমাজি জেলার সিলাপাথর পুলিশ স্টেশনের অন্তর্গত দেমগাও এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে।

রহস্যজনকভাবে ১৭ মে রাতে ওই কিশোরীর মৃত্যু হয়। এরপর পরিবারের লোকজন তার দেহ সিমেন নদীর ধারে কবর দেয়। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৭ মে রাতে রহস্যজনকভাবে ওই কিশোরীর মৃত্যু হয়। এরপর ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা তার মৃতদেহ সিমেন নদীর ধারে কবর দেয়। পরদিন ১৮ মে বিকেলে জেলেদের একটি দল সেখানে মাছ ধরতে যায়। এ সময় তারা দেখতে পান- এক ব্যক্তি একটি মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করছে। সেখানে গিয়ে তারা বুঝতে পারেন সেটি একটি মৃতদেহ। ওই ব্যক্তিকেও ধরে ফেলে পুলিশের হাতে তুলে দেন তারা।

জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত আকান শইকিয়া পুলিশকে জানায়, সহবাস করার উদ্দেশ্যেই ওই কিশোরীর দেহ কবর থেকে তুলেছিলেন তিনি। সিলাপাথর থানার পুলিশ ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬, ৩৭৭ ও পকসো আইনে মামলা দায়ের করেছে।

এ বিষয়ে ধেমাজির ডেপুটি পুলিশ সুপার প্রদীপ কোনওয়ার জানান, লকডাউনের আগে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন ওই ব্যক্তি।

তিনি আরো বলেছেন, ‘ওই ব্যক্তির কোনো মানসিক সমস্যা নেই। ২০১৮ সালে স্ত্রী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। তারপর পলাতক ছিলেন তিনি। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ২০১৯ সালে সেপ্টেম্বরে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তাকে।’

তিনি আরো জানান, ওই কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়। এরপর ওই এলাকার প্রচার হয় যে ওই কিশোরী যৌন অত্যাচারিত হওয়ার কারণেই আত্মহত্যা করেছেন। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিয়েও তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0791 seconds.