• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৩ মে ২০২০ ১৮:০৩:২০
  • ২৩ মে ২০২০ ১৮:০৩:২০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

লকডাউনে ঘেরা দিয়ে চলছে পাহাড় কাটা, হবে বহুতল ভবন

ফাইল ছবি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারী রোধে চলছে লকডাউন। এমতাবস্তায় চট্টগ্রামে টিন দিয়ে ঘিরে চলছে পাহাড় কাটার কাজ। নগরীর প্রাণকেন্দ্র এস এস খালেদ সড়কে রীমা কমিউনিটি সেন্টারের বিপরীতে এই পাহাড় কাটা কাজ চলছে। সেখানে বহুতল ভবন নির্মাণ করা হবে।

গত দুই সপ্তাহ ধরে চলছে এই পাহাড় কাটার কাজ চলছে। প্রায় ৭০ ফুট লম্বা ও ৩০ ফুট প্রশস্ত পাহাড় শ্রেণির এই জায়গাটি সমতল করা হচ্ছে। মাসখানেক আগে টিন দিয়ে ঘেরা হয় জায়গাটি। এরপর ধীরে ধীরে পাহাড় কাটার কাজ শুরু হয়।

স্থায়ী বাসিন্দার জানান, জায়গাটি পুরোটাই পাহাড় ছিলো। এখন কেটে কিছুটা সমতল করা হয়েছে। আরো অনেক বাকি রয়েছে। করোনার লকডাউনের ফাঁকে এই কাজ করা হচ্ছে। জায়গাটির মালিক দারদুস শাহ নামের এক চিকিৎসক। তার কাছ থেকে কয়েকজন ব্যক্তি জায়গাটি কিনে নেন।

জানা গেছে, একটা সমিতিভুক্ত হয়ে বিভিন্ন পেশার কিছু মানুষ জায়গাটি সমতল করে বহুতল ভবন নির্মাণে কাজ শুরু করছেন। মূল সড়কের পাশে হওয়ায় জায়গাটি খুবই লোভনীয়। এজন্য জোটবদ্ধ হয়ে পাহাড় কেটে সমতল করার চেষ্টা চলছে বলে সমিতির এক সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান।

এই জোটের একজন সনজীব দত্ত। মূলত পাহাড় কাটার বিষয়টি তিনি তদারক করছিলেন। পাহাড় কাটার অভিযোগে ইতিমধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তর তাকে নোটিশও দিয়েছে। তবে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরের পরিচালক মো. নুরুল্লাহ নূরী বলেন, ‘নানা দিক থেকে এই পাহাড় কাটার বিষয়টি জেনেছি। গত রবিবার সরেজমিনে গিয়ে পাহাড় কাটার প্রমাণ পেয়েছি। পাহাড় কাটার সঙ্গে বেশ কয়েকজন জড়িত। তবে সনজীব দত্ত নামের একজনের নাম পেয়েছি। তাকে নোটিশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি চিকিৎসক দারদাউস শাহ নামে একজনকেও নোটিশ দেয়া হয়। মূলত তিনি জমিটির মালিক। তার কাছ থেকে সনজীবরা জায়গাটি ক্রয় করেন।’

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0646 seconds.