• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৫ মে ২০২০ ১৩:২৬:০১
  • ২৫ মে ২০২০ ১৩:২৬:০১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘ধোঁকাবাজি’র অভিযোগে কাঠগড়ায় ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

ছবি : টাইমস অব ইসরায়েল থেকে নেয়া

ঘুষ, ধোঁকাবাজি, বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে। দেশটির  ইতিহাসে এই প্রথম কোনো ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রীকে ফৌজদারি মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে হলো।

গতকাল ২৪ মে, রবিবার জেরুজালেমের আদালতে হাজির হয়ে ৭০ বছর বয়সী নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমি এখানে আমার মেরুদণ্ড সোজা ও মাথা উঁচু করতে এসেছি।’

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়, মাস্ক পরিহিত নেতানিয়াহু আদালত কক্ষ থেকে সাংবাদিকরা বেরিয়ে যাওয়ার আগে আসন গ্রহণ করতে অসম্মত হন। 

তার বিরুদ্ধে আনা ঘুষ, ধোঁকাবাজি, বিশ্বাসভঙ্গের সকল অভিযোগ জোরালোভাবে অস্বীকার করেন তিনি। এমনকি মামলা চলাকালীন সময়ে বিরোধী পক্ষের দেওয়া পদত্যাগের প্রস্তাবও প্রত্যাখান করেছেন ডানপন্থী লিকুদ দলের এই নেতা।

পঞ্চমবারের মতো দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের এক সপ্তাহের মধ্যেই নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে।

সম্প্রতি তিন দফায় ইসরায়েলে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু কোনো বারই নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী কোনো রাজনৈতিক দল। এতে বছরখানেক ধরে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা দেখা দেয়। অবশেষে নেতানিয়াহুর রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী বেনি গ্যান্টজ ক্ষমতা ভাগাভাগি করতে রাজি হলে এ অবস্থার অবসান হয়।

পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতায় আসেন নেতানিয়াহু। ক্ষমতা গ্রহণের এক সপ্তাহের মধ্যেই তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠে। কিন্তু আদালতে সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি। যে কোনো উপায়ে তার পতন ঘটানোর জন্যই এই মামলা করা হয়েছে বলে দাবি করেন নেতানিয়াহু।

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0901 seconds.