• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৮ মে ২০২০ ১৯:৫০:২৭
  • ২৮ মে ২০২০ ১৯:৫০:২৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সমকামী প্রেমের জেরে বন্ধুকে খুন

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের বন্ধুকে হত্যা করে পালানোর সময় পুলিশের গাড়ির সামনে অজ্ঞান হয়ে পড়েন খুনী রাকিব। নিহত ফেরদৌসের সঙ্গে রাকিবের সমকামী সর্ম্পক ছিলো বলে জানা গেছে। তারা দু’জনই ফতুল্লার একটি গার্মেন্টে কাজ করতেন। ফতুল্লার মুসলিমনগর এলাকার লোকমান হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তারা।

নিহত ফেরদৌস পটুয়াখালী জেলার শুভডুগী গ্রামের আব্দুল মিয়ার ছেলে। তিনি একমাস আগে বিয়ে করেছেন। আর ঘাতক রাকিব শরীয়তপুর জেলার পোপনচর গ্রামের সোবহান মিয়ার ছেলে।

বাড়ির আরেক ভাড়াটিয়া সুমন জানান, তিনি একজন রেডিমেট কাপড় ব্যবসায়ী। চাঁদ রাত ১ টার দিকে তিনি বাসায় ফেরেন। ওই সময় তিনি বাড়ির গোসলখানার মধ্যে চিৎকার শুনে দেখেন রাকিব রক্তমাখা ছুরি হাতে দাঁড়িয়ে আছেন আর ফেরদৌস নিচে পড়ে আছেন। তখন তিনি চিৎকার করলে বাড়ির ভাড়াটিয়ারা ছুটে এলে রাকিব দৌড়ে পালিয়ে যান।

নিহত ফেরদৌসে স্ত্র‍ী সাদিয়া জানান, ১ মাস আগে ফেরদৌসের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তার স্বামীর সঙ্গে রাকিবের ভাল বন্ধুত্ব ছিলো। তাদের মধ্যে পূর্বে কোন শত্রুতা ছিলো কিনা তা জানেন না তিনি।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মামুন জানান, রাকিব নামে এক যুবক গত রবিবার রক্তাক্ত অবস্থায় পঞ্চবটি মোড়ে এসে পুলিশের গাড়ির সামনে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। ওই সময় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়। তার হাত কেটে অনেক রক্তক্ষরণ হয়েছে। পরে জানতে পারি সে তার আরেক বন্ধুকে খুন করেছে।

থানার ওসি আসলাম হোসেন বলেন, ঘটনাটি স্পর্শকাতর। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হাসপাতালে ভর্তি থাকা রাকিব জানিয়েছে ফেরদৌস ও তার মধ্যে সমকামী সর্ম্পক ছিলো। ওই সম্পর্কের কারণে রাকিব অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার চিকিৎসা চলছিল। এ কারণে ফেরদৌসের ওপর তার ক্ষোভ ছিলো।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0766 seconds.