• বিদেশ ডেস্ক
  • ৩০ মে ২০২০ ১৬:২৬:২০
  • ৩০ মে ২০২০ ১৭:১৭:২২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

রেমডিসিভির, প্লাজমা থেরাপিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ‘না’

ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের বাজারে সম্প্রতি আলোচিত একটি ওষুধের নাম রেমডিসিভির। ওষুধ কোম্পানি বেক্সিমকো, এসকেএফ এটি উৎপাদন করছে। করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) রোগীর ‘চিকিৎসার্থে’ সরবরাহও শুরু করেছে। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এই ওষুধ ব্যবহারে না করে দিয়েছে।

সংস্থাটির সর্বশেষ প্রকাশিত ক্লিনিক্যাল ম্যানেজমেন্ট গাইডলাইডে রেমডিসিভির ব্যবহার না করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে এতে প্লাজমা থেরাপি না দেয়ার জন্যও বলা হয়েছে।

২৭ মে প্রকাশিত এই গাইডলাইনে রেমডিসিভিরের বেশ কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তবে প্লাজমা থেরাপিকে না করার বিষয়ে তেমন ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি। পরীক্ষাধীন কোনোকিছু চিকিৎসা কাজে ব্যবহার করতে মানা করা হয়েছে।

শুধু রেমডিসিভির নয়, একই সঙ্গে আরো কিছু এন্টিভাইরাস ওষুধ ব্যবহার করতে মানা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সেগুলো হলো- লোপিনাভির/রিটোনাভির, উমিফেনোভির ও ফ্যাভিপিরাভির। ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইন, হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের (সঙ্গে এজিথ্রোমাইসিন) ব্যবহার আগে মানা করেছে সংস্থাটি। নতুন গাইডলাইনেও সেই মানার কথা উল্লেখ আছে।

সর্বশেষ এই গাইডলাইনে জাতিসংঘের এই স্বাস্থ্য সংস্থা তাদের না করে দেয়া তালিকার ওষুধগুলোর ‘গুরুত্বপূর্ণ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া’র কথা উল্লেখ করেছে। এর মধ্যে রেমডিসিভিরের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে হেপাটিক এনজাইক বৃদ্ধ পাওয়া, জি আই জটিলতা, ফুঁসকুড়ি ওঠা, কিডনিজনিত সমস্যা ও হাইপোটেনশনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0647 seconds.