• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৭ জুন ২০২০ ১৭:৪৫:৪৮
  • ১৭ জুন ২০২০ ১৭:৪৮:৫৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

করোনা মোকাবেলায় ডেক্সামেথাসোন, কিছু পরামর্শ

ফাইল ছবি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর কবলে সারাবিশ্ব। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা দিনরাত গবেষণা করেও এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসটির কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি। সেখানে আশার আলো দেখাচ্ছে ডেক্সামেথাসোন।

সম্প্রতি জাতিসংঘের বিজ্ঞানীরা জানান, আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের জীবন রক্ষায় সাহায্য করবে ডেক্সামথাসোন। করোনা প্রতিরোধে স্বল্প মাত্রার স্টেরয়েড চিকিৎসা একটা যুগান্তকারী আবিষ্কার বলেও জানান বিশেষজ্ঞরা।

করোনায় চিকিৎসায় নতুন এই ওষুধের বিষয়ে কিছু পরামর্শ তুলে ধরেছেন ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি হসপিটালের চিকিৎসক ডা. রাইয়িক রিদওয়ান ও বসুন্ধরা কোভিড ডেডিকেটেড হসপিটালের চিকিৎসক ডা. মারুফ রায়হান খান

 ১. একটা ওষুধ গ্রহণ করার আগে কী কী মাথায় রাখা উচিত?

উত্তর : প্রথমত, যে অসুবিধার জন্য ওষুধটি গ্রহণ করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে এটি কাজ করে কিনা। দ্বিতীয়ত, ওষুধটি আমাদের শরীরের জন্য যথেষ্ট নিরাপদ কিনা। এ দুটোর একটা উত্তরও যদি ‘না’ হয়, সে ওষুধ খাওয়া ঠিক হবে না।

২. তার মানে কি যে ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে সে ওষুধ গ্রহণ করা যাবে না?

উত্তর : বিষয়টি আসলে তেমন না। প্রায় সব ওষুধেরই কিছু না কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। তবে যেসব ওষুধের অনেক বেশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে, সেগুলো অহরহ ব্যবহার না করে ‘শেষ অস্ত্র’ হিসেবে রাখা উচিত- ডাক্তারের পরামর্শেই।

৩. শোনা যাচ্ছে নতুন একটি ওষুধ আবিষ্কৃত হয়েছে ‘ডেক্সামেথাসোন’?

উত্তর : এটি আরো বহু বছর আগ থেকেই বিভিন্ন রোগে ব্যবহার হয়ে এসেছে। নতুন কোনো ওষুধ না। এটি এক ধরনের স্টেরয়েড।

৪. ডেক্সামেথাসোন কি কোভিড-১৯’এ কাজ করে?

উত্তর : যেসব রোগী হাসপাতালে ভর্তি এবং অক্সিজেন লাগছে অথবা ভেন্টিলেটরে আছে শুধুমাত্র তাদের ক্ষেত্রেই এটি কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে গবেষণায়। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির গবেষণায় দেখা গেছে, যারা ভেন্টিলেটরে আছে তাদের মৃত্যুহার ৩৫% এবং যাদের অক্সিজেন লাগছে তাদের মৃত্যুহার ২০% পর্যন্ত কমে। যাদের অক্সিজেনের দরকার নেই। শুধুই জ্বর, কাশিসহ অন্যান্য উপসর্গ আছে- গবেষণায় তাদের ক্ষেত্রে এটির কোনো কার্যকারিতা পাওয়া যায়নি।

৫. কীভাবে কাজ করে ডেক্সামেথাসোন?

উত্তর : ওষুধটি মূলত দু’ভাবে কাজ করে। প্রথমত, শরীরের প্রদাহ বা ইনফ্ল্যামেশানের বিরুদ্ধে কাজ করে। এই অতিরিক্ত প্রদাহের জন্যে কোভিড-১৯’এ সিরিয়াস পর্যায়টি হয়। দ্বিতীয়ত, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দিয়েও ওষুধটি কাজ করে।

৬. যেহেতু ওষুধটি কোভিড-১৯’এ কাজ করছে বলা হচ্ছে, তাহলে আগে থেকেই ওষুধটি খাওয়া শুরু করা ভাল হয় না?

উত্তর : মোটেও না। বরং আগে থেকে খেলে রোগটি আরও খারাপ দিকে যেতে পারে। কারণ আগেই বলেছি, এই ওষুধ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। এই ওষুধের কারণেই শরীরে জুটতে পারে আরও অন্যান্য রোগ। রয়েছে অনেক অনেক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে সিভিয়ার/ক্রিটিক্যাল করোনা রোগীর চিকিৎসায় এটি ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু এটা কোনোভাবেই এটি করোনা প্রতিরোধ করে না। অর্থাৎ কেউ যদি মনে করে এই ওষুধটি খেলে করোনা হবে না, সেটি বড্ড বোকামি হবে।

৭. ওষুধটির কী কী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে?

উত্তর : অনেক লম্বা তালিকা করতে হবে। এখানে শুধু কয়েকটি উল্লেখ করছি।

- রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গিয়ে ইনফেকশানের সম্ভাবনা বেড়ে যাওয়া

- পেটে আলসার হওয়া, সেই আলসার থেকে রক্তবমি এবং কালো পায়খানা হতে পারে

- রক্তচাপ বেড়ে যাওয়া

- রক্তের শুগার বেড়ে যাওয়া

-  কুশিং সিন্ড্রোম নামে ভয়ঙ্কর রোগ হওয়া

- হাড় ক্ষয়ে যাওয়া

- রক্তপাতের সম্ভাবনা বেড়ে যাওয়া

- চামড়ায় র‍্যাশ হওয়া

- ওজন বেড়ে যাওয়া

- মাথা ব্যথা

- অতিরিক্ত উদ্বিগ্নতা, অস্থিরতা

- ঘুমের সমস্যা ইত্যাদি

এছাড়াও দীর্ঘ সময় ধরে ওষুধটি নেয়ার পর হঠাৎ করে ওষুধটি বন্ধ করে দিলে বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে।

৮. তাহলে মূলকথা কী দাঁড়ালো?

উত্তর : খারাপ অবস্থায় চলে যাওয়া করোনা রোগীদের জীবন রক্ষাকারী এক ওষুধ হতে পারে ডেক্সামেথাসোন। ঠিক তেমনই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এটি গ্রহণ করলে ডেকে আনতে পারে মারাত্নক পরিণতি। যার করোনা হয়নি কিংবা সাধারণ করোনা, তাদের জন্য এই ওষুধটি কার্যকর তো নয়ই বরং ক্ষতিকর হতে পারে।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0859 seconds.