• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৬ জুন ২০২০ ১৮:৫৩:৫৭
  • ২৬ জুন ২০২০ ১৮:৫৩:৫৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে প্রায় ৪০ হাজার করোনায় আক্রান্ত

ফাইল ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে ৩৯ হাজার ৮১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ২৫ জুন, বৃহস্পতিবারই এই মাত্রায় আক্রান্ত হয়। এটি এখন অবধি এ মহামারীর ক্ষেত্রে একদিনে সবচেয়ে বড় বৃদ্ধির ঘটনা। আর গত বুধবার ৩৬ হাজার এরও বেশি নতুন কেস রেকর্ড করা হয়েছে। ২৪ শে এপ্রিল রেকর্ড ৩৬ হাজার ৪২৬ জনের চেয়ে তা অল্প সংখ্যক কম।

এই সপ্তাহে আলাবামা, অ্যারিজোনা, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, আইডাহো, মিসিসিপি, মিসৌরি, নেভাডা, ওকলাহোমা, দক্ষিণ ক্যারোলিনা এবং ওয়াইমিংয়ের ক্ষেত্রেও নতুন আক্রান্তের রেকর্ড ঘটেছে বলে জানা গেছে।

ট্রাম্প প্রশাসন মহামারী সম্পর্কে দেশবাসীর উদ্বেগকে নরম করার চেষ্টা করেছে যদিও এক ডজন বা তারও বেশি রাজ্য উদ্বেগজনক হারে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

মার্কিন স্বাস্থ্য ও মানবসেবা বিষয়ক সম্পাদক আলেক্স আজার ফক্স নিউজকে একটি সাক্ষাৎকারে জানান, ‘আমরা এই পরিস্থিতিতে রাজ্য এবং স্থানীয় নেতাদের সাথে আগ্রাসীভাবে কাজ করছি। তবে আমেরিকান জনগণের জানা উচিত এটি শুধুমাত্র স্থানীয় পরিস্থিতি।’

তিনি আরো বলেন, ‘হটস্পটগুলোতে আক্রান্তের সংখ্যা মোট আমেরিকার মাত্র ৩%।’

সরকারী বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন ২ কোটিরও বেশি আমেরিকান করোনাভাইরাস সংক্রমণের শিকার হয়েছেন। যা অফিসিয়াল সংখ্যার তুলনায় ১০ গুণ বেশি। কারণ অনেক মানুষের এই রোগ হয়েছে কিন্ত তারা লক্ষণবিহীন ছিলেন বলে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

যদিও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানান, যাদের কোভিড -১৯ সংক্রমণ রয়েছে তবে কোনো লক্ষণ নেই তারাও রোগ ছড়াতে সক্ষম।

এদিকে টেক্সাসের গভর্নর বৃহস্পতিবার রাজ্যটির পুনরায় চালু করা সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। কারণ যেহেতু কোভিড-১৯ সংক্রমণ এবং হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাছাড়া দেশে একদিনের হিসেবে নতুন সংক্রমণের ক্ষেত্রে এক নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে।

টেক্সাস, যা করোনা মহামারীতে বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে বিধ্বস্ত অর্থনীতির চাকা সচল করার প্রচেষ্টায় সর্বাগ্রে রয়েছে, গত সোমবার সেখানে এক দিনে ছয় হাজারেরও বেশি করোনা আক্রান্ত হয়েছে।

টেক্সাস টানা ১৩ দিন হাসপাতালে রেকর্ড সংখ্যক রোগী ভর্তি হয়েছে। অ্যাবট হিউস্টন, ডালাস, অস্টিন এবং সান আন্তোনিও অঞ্চলগুলোতে হাসপাতালের বিছানার জায়গা খালি করতে নিয়মিত সার্জারি স্থগিত করা হয়েছে।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0722 seconds.