• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৩ জুলাই ২০২০ ১৯:৪৪:১৩
  • ০৩ জুলাই ২০২০ ১৯:৪৪:১৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা দশগুণ বেশি : ডব্লিউএইচও

সৌম্য স্বামীনাথ। ছবি: সংগৃহীত

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা ঘোষিত সংখ্যার চেয়ে দশগুণ বেশি বলে জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সবাইকে পরীক্ষার আওতায় না আনতে পারার কারণে আক্রান্তের আসল সংখ্যাটা জানা যাচ্ছে না বলেও জানায় এই স্বাস্থ্য সংস্থাটি।

নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে ডব্লিউএইচও প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথ বলেন, প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা ঘোষিত সংখ্যার চেয়ে দশগুণ বেশি বা প্রায় ১০ কোটি। যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের সবার তথ্য কিন্তু আমরা জানছি না।

তিনি আরো বলেন, বেশ কয়েকটি দেশে করোনার সামগ্রিক অবস্থার উন্নতি হলেও অবনতি হয়েছে সমগ্র বিশ্বের পরিস্থিতি। ২ জুলাই, বৃহস্পতিবার একদিনেই আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষাধিক মানুষ, যা এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ। মারা গেছেন পাঁচ হাজারের অধিক।

এদিকে বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ৯৭ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। অপরদিকে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না এলেও ভারত, ব্রাজিলসহ বিভিন্ন দেশে শিথিল করা হচ্ছে আরোপিত বিধিনিষেধ। ব্রাজিলে খুলে দেয়া হচ্ছে রেস্টুরেন্ট, বারসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এতদিন রিও ডি জেনিরিওর রেস্টুরেন্টগুলো শুধু খাবার পার্সেল দিলেও এখন সেখানে বসেই খাবার অনুমতি দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় এক বাসিন্দারা জানান, দুপুরের খাবার খেতে আমরা এখানে এসেছি। আমার কাছে এটা নিরাপদ স্থান মনে হচ্ছে। অনেক দিন পরে এমন সুযোগ পেয়ে খুবই ভালো লাগছে।

তবে ব্রাজিলে ২ জুলাই, বৃহস্পতিবারও সংক্রমণিত হয়েছে প্রায় ৪৮ হাজার মানুষ। মারা গেছেন ১২ হাজারেও বেশি। এ অবস্থায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া এবং বিধি-নিষেধ শিথিল করায় সংক্রমণ আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

ওই একই দিনে ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২২ হাজার মানুষ। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ছয় লাখ। তবুও বিভিন্ন রাজ্যে বিধি-নিষেধ শিথিল করা হচ্ছে। এক বাসিন্দারা বলেন, আমরা আক্রান্তদের শনাক্তের কার্যক্রম গুরুত্বের সাথে পরিচালনা করছি। প্রথমে সন্দেহভাজনদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে, পরে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে করোনার বিষয়ে নিশ্চিত হচ্ছি।

এদিকে করোনা মোকাবিলায় অভাবনীয় সাফল্যের দাবি করেছেন উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন। উত্তর কোরিয়ার কেন্দ্রীয় সংবাদ সংস্থাকে এক বিবৃতিতে কিম দাবি করেন, করোনা মাহামারীর বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সতর্কতা গ্রহণের কারণেই সফল হয়েছে তার দেশ। যদিও উত্তর কোরিয়ায় করোনা সংক্রমণের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0848 seconds.