• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৩ জুলাই ২০২০ ২১:৪৬:২৩
  • ২৩ জুলাই ২০২০ ২১:৫০:০২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ধর্ষণের পর হাতুড়ি-ছুরি দিয়ে ৮৪ নারীকে হত্যা

মিখাইল পোপকভ। ছবি: সংগৃহীত

একে একে ৮৪ জন নারীকে হত্যা করেছেন। এসব নারীদের কাউকে হাতুডি়র আঘাতে আবার কাউকে ছুরি দিয়ে হত্যা করেন। এছাড়াও কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে ও শ্বাসরোধ করেও অনেক নারীকে হত্যা করা হয়। এই সিরিয়াল কিলারের নাম মিখাইল পোপকভ। তিনি রাশিয়ার সাবেক পুলিশকর্মী।

মিখাইল ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী নারীদের ধর্ষণ করার পর এভাবে হত্যা করতেন। সম্প্রতি তার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগা মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিওতে তার নিজের স্বীকারোক্তি রয়েছে। সেখানে কি কারণে, কবে এবং কীভাবে ওই নারীদের হত্যা করেছেন তার বর্ণনা দেন তিনি।

মিখাইল ১৯৯২ থেকে ২০১০ পর্যন্ত ৮৪ জন নারীকে হত্যা করেন। রাশিয়ার পুলিশের তথ্য মতে, তিনি নিজেই ৮১ জন নারীকে হত্যার কথা স্বীকার করেন।

মিখাইলের এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তার ছিলেন এবচের্জেবস্কি। তিনি সন্দেহ করেন, মিখাইল এ পর্যন্ত অন্তত ২০০ জনকে হত্যা করেছেন। মিখাইলকে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ আরো অনেক তথ্য পেয়েছে। তবে জিজ্ঞাসাবাদেও মিখাইল মোট কতজনকে হত্যা করেছেন সেই তথ্য জানাতে অস্বীকার করেন।

মিখাইলের উপর ২০১৫ সালে ২২ জন নারীকে হত্যার করার অভিযোগ পাওয়া যায়। কিন্তু পরে আরো ৫৯ জন নারীকে হত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি। এর মধ্যে একজন নারী পুলিশকর্মীও ছিলেন। তবে পুলিশ তিনটি হত্যাকাণ্ডে মিখাইলের সম্পৃক্ততার কোনো প্রমাণ এখনো পায়নি।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1162 seconds.