• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৪ জুলাই ২০২০ ১২:৩২:৫৫
  • ২৪ জুলাই ২০২০ ১২:৩২:৫৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ধর্মত্যাগে শাস্তির বিধান বাতিল করলো সুদান

ছবি: সংগৃহীত

সুদানে ধর্মত্যাগ করলে শাস্তির বিধান বাতিল করেছে দেশটির সরকার। একই সঙ্গে অমুসলিমদের জন্য মদ্যপানে নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হয়েছে। এছাড়াও নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ নিষিদ্ধ করা হয়। চার দশক ধরে কট্টর ইসলামি আইন অনুযায়ী ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করলে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হতো।

শিগগিরই এই আইন কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির বিচারমন্ত্রী নাসরেদ্দীন আব্দুলবারি। এমন খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলে।

এ বিষয়ে বিচারমন্ত্রী জানান, ধর্মত্যাগকে এতদিন অপরাধ হিসেবে দেখা হতো। তবে সেই আইনে পরিবর্তন আসছে। একই সঙ্গে নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদকেও অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে নতুন আইনে।

বিচারমন্ত্রী আরো বলেন, ‘কোনো ব্যক্তি বা গ্রুপকে ‘বিধর্মী' বা ‘অবিশ্বাসী’ বলার অধিকার কারো নেই। এতে সমাজের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয়, প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ তৈরি হয়। ওমর আল-বশিরের ক্ষমতাচ্যূতির পর সুদানে বর্তমানে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার রয়েছে।’

ইউনিসেফের ২০১৪ সালের এক প্রতিবেদন বলা হয়, সুদানে ৮৫ শতাংশেরও বেশি নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ করা হয়।

এছাড়াও সন্তানদের নিয়ে কোথাও ভ্রমণ করতে হলে নারীদের আর পরিবারের কোনো পুরুষ সদস্যের অনুমতি নিতে হবে না। তবে অমুসলিমদের মদ্যপানের অনুমতি দেয়া হলেও শর্ত আরোপ করা হয়েছে। তারা প্রকাশ্যে মদ পান করতে পাবে না এবং জনগণের শান্তি বিঘ্নিত হয় এমন কিছু করতে পাবে না।

প্রসঙ্গত, তিন দশকের শাসন শেষের বছরখানেক আগে তীব্র গণবিক্ষোভের মুখে পতন ঘটে ইসলামপন্থি স্বৈরশাসক ওমর আল-বশিরের। এরপর থেকে দেশটির নানা আইন ও বিচারব্যবস্থায় পরিবর্তন আসছে। আন্দোলনকারী ও সেনা কর্মকর্তাদের মধ্যে সমঝোতার ভিত্তিতে গঠন করা হয়। নতুন সরকার শুরু থেকেই নানা রকম সংস্কার করছে।

এমনকি তিন বছরের জন্য গ্রহণ করা সংবিধানে রাষ্ট্রের অন্যতম মূলনীতি ‘ইসলাম’ কথাটিও বাদ দেয়া হয়। এ মাসের শুরুতে জনগণের কাছে আরো ক্ষমতা দেয়ার দাবিতে আবার রাজপথে নামেন হাজার হাজার আন্দোলনকারী। ওই সময় আরো বড় বড় সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল দেশটির সরকার।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1516 seconds.