• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ২৬ জুলাই ২০২০ ১১:০৬:৩৬
  • ২৬ জুলাই ২০২০ ১১:০৬:৩৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আগস্টেই অনুশীলনে ফিরছেন সাকিব

ফাইল ছবি

বাজিকরদের দেয়া প্রস্তাব গোপন করায় এবং তা পরে স্বীকার করায় এক বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন বাংলাদেশি তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আগামী ২৯ অক্টোবর। যদিও করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে স্থবিরতা দেখা দেয়ায় সাকিবকে ছাড়া খুব কম ম্যাচই খেলতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

এবার এই তারকা জানিয়েছেন, তিনি মাঠে ফেরার প্রস্তুতি হিসেবে আগামী আগস্ট মাস থেকেই অনুশীলনে ফেরার পরিকল্পনা করছেন। ইএসপিএন-ক্রিকইনফো’র অনুষ্ঠান ‘ক্রিকেটবাজি’র সঞ্চালক দীপ দাসগুপ্ত’র সাথে আলোচনায় এমন তথ্য জানিয়েছেন সাকিব নিজেই।

কোভিড-১৯ এর এই সময়ে ফেরা উপলক্ষ্যে কোনো অনুশীলন শুরু করেছেন কিনা সঞ্চালকের এমন প্রশ্নের জবাবে সাকিবের উত্তর ছিল, ‘‘আমি আগামী মাস (আগস্ট) থেকে অনুশীলনে ফেরার পরিকল্পনা করেছি। এখনো আমার সামনে তিন মাসের মতো বাকি আছে।’

মাঠে ফেরার জন্য তিন মাসের মধ্যে নিজেকে প্রস্তুত করার আশাবাদও ব্যক্ত করেন সাকিব। সেইসাথে তিনি জানান এখন পর্যন্ত ফিটনেস নিয়ে কোনো কাজই করেননি তিনি।

তার ভাষ্য, ‘আমি এখন পর্যন্ত কিছু করিনি। তবে আমি বিশ্বাস করি, সামনের তিন মাসের মধ্যে আমি ক্রিকেটে ফেরার মতো কাঙ্খিত ফিটনেসে পৌঁছাতে পারবো। আপাতত আমার এটাই পরিকল্পনা।’

এর আগ পর্যন্ত সময় পরিবারকেই দিতে চান সাকিব। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আগামী দুই-তিন সপ্তাহ আমি আমার বাচ্চা এবং পরিবারকে সময় দিবো। এরপর আমি আবার আমার ক্রিকেটের জন্য প্রস্তুতি নিবো।’

করোনার এই ক্রান্তিকাল শেষে সকলেই ক্রিকেটে ফিরতে চায় বলেও জানান তিনি। সাকিব বলেন, ‘শেষ চার পাঁচ মাস কোনো ক্রিকেট নেই মাঠে। যা খুবই হতাশার। আমার মনে হয়, সবাই মাঠে ফিরতে আকূল হয়ে আছে। এই মুহূর্তে, দুটি দল ক্রিকেট খেলছে। যা অন্য দলগুলোকেও ক্রিকেট খেলার জন্য আগ্রহী করে তুলবে বলে আমার বিশ্বাস।‘

যেসব দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে যেমন নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্য দিয়ে আবার ক্রিকেট আগের মতো ফিরবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

নিষিদ্ধ হওয়ার পরপরই স্ত্রী-সন্তানকে সময় দিতে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান তিনি। সেখানে এপ্রিলে জন্ম নিয়েছে তার দ্বিতীয় সন্তান। এই সময়টায় মাঠে না থাকলেও বিভিন্ন চ্যারিটি কাজে অংশ নিয়ে যাচ্ছেন সাকিব। করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় নানা উদ্যোগে সঙ্গী হয়েছে তার প্রতিষ্ঠিত ‘দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন’।

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0752 seconds.