• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৯ জুলাই ২০২০ ১৫:২৮:৫৯
  • ২৯ জুলাই ২০২০ ১৫:২৮:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

প্রতিবছর ৯ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ হেপাটাইটিস বি

ছবি : প্রতিকী

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীতে এ পর্যন্ত সারাবিশ্বে সাড়ে ৬ লাখের অধিক মানুষ প্রাণহারিয়েছেন। তবে প্রতিবছর হেপাটাইটিস বি’র সংক্রমণে বিশ্বে ৯ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) পরিসংখ্যানে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

তাই করোনার চেয়ে হেপাটাইটিস কোনো অংশেই কম নয়। এমন খবর প্রকাশ করেছে নিউজ এইট্টিন।

মূলত পাঁচ ধরনের হেপাটাইটিস ভাইরাস রয়েছে। সেগুলো হলো- এ, বি, সি, ডি ও ই। এই সবটি ভাইরাসই প্রাণহানি ঘটনায়। এছাড়া এনপ্লাজমা ও নোকার্ডিয়া জাতীয় ব্যাকটেরিয়াও এই সংক্রমণ ঘটাতে পারে। এমনকি যৌন সংসর্গ থেকেও হেপাটাইটিস বি ছড়াতে পারে। অত্যাধিক মদ্যপানও হেপাটাইটিসের কারণ।

হেপাটাইটিস দেহের যকৃত পুরোপুরি অকার্যকর করে দেয়। সেক্ষেত্রে যকৃত প্রতিস্থাপন ছাড়া আর কোরো উপায় থাকে না।

হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হলে প্রথমে কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। প্রাথমিক উপসর্গগুলো হলো- চামড়া ও চোখ হলুদ হয়ে যাওয়া, সারাদিন ক্লান্তি বোধ, পেশি বা গাঁটে ব্যথা ও হতাশা বোধ।

হেপাটাইটিস এড়াতে চিকিৎসকরা কিছু পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এর মধ্যে বাথরুমে যাওয়ার আগে ও পরে খুব ভাল করে হাত ধোয়া। এছাড়াও যৌন সম্পর্ক স্থাপনের সময় কন্ডোম ব্যবহার করা। কখনোই অন্যের ব্যবহৃত সিরিঞ্জ ব্যবহার না করা।

এমনকি সংক্রমিত ব্যক্তির নখ কাটার যন্ত্র, টুথব্রাশ, দাড়ি কাটার রেজার থেকেও ছড়াতে পারে হেপাটাইটিস। তাই অন্যের ব্যবহৃত এসব জিনিস ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকা।

প্রসঙ্গত, ওয়ার্ল্ডোমিটার’র তথ্য মতে, ২৯ জুলাই, বুধবার সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ১ কোটি ৬৮ লাখ ৯৩ হাজার ২৯৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৪৬৫ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন। বিপরীতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ৪ লাখ ৫৬ হাজার ৩৭১ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ৫৭ লাখ ৭৩ হাজার ৪৫৭ জন করোনারোগী, যাদের মধ্যে ৬৬ হাজার ৪৯০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.4205 seconds.