• বাংলা ডেস্ক
  • ১৫ আগস্ট ২০২০ ১৩:০৫:৩৬
  • ১৫ আগস্ট ২০২০ ১৬:০৪:২৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ঈর্ষা’র কারণে বেশি রেগে যান খাটো ব্যক্তিরা!

ছবি : প্রতীকী

মানুষের আচরণের মধ্যে রাগ খুব ভয়াবহ একটি ব্যাপার। সকলেই কম-বেশি রাগ প্রকাশ করলেও সাধারণ মানুষদের তুলনা নাকি খাটো মানুষরা বেশি রাগী হন। একটি গবেষণায় এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে। এতে দীর্ঘদিন ধরে প্রচলিত সেই প্রবাদবাক্য ‘ছোট মরিচের ঝাঁঝ বেশি’র সত্যতাই যেন প্রমাণিত হলো।

সম্প্রতি এক সমীক্ষা চালিয়ে পাওয়া ফলাফল থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল ইন আটলান্টার গবেষকরা এসব তথ্য জানিয়েছেন। গবেষণার প্রয়োজনে ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী ৬০০ মানুষের ওপর সমীক্ষা চালান প্রতিষ্ঠানটির গবেষকরা।

তারা দেখতে পান, উচ্চতায় খাটো মানুষরা অল্প কথায়ই রেগে যান। সামনে কোনো লম্বা মানুষ দেখতে পেলে খাটো ব্যক্তিরা এমনিতেই ঈর্ষান্বিত হন। লম্বা মানুষরা কোনো যে কারণে সহ্যই করতে পারেন না খাটোরা লোকেরা।

সব ক্ষেত্রে যদিও এই নিয়ম খাটে না। এর ব্যতিক্রমও দেখা যায়। বহু খাটো ব্যক্তি আছেন যারা আচরণে খুবই শান্ত-শিষ্ট। তবে এসব নেহাৎই ব্যতিক্রম। বদমেজাজি খাটো মানুষদের গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ হলেন সাবেক ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়ান বোনাপার্ট ও সাবেক জার্মান একনায়ক এডলফ হিটলার। এই দুই বদমেজাজি শাসকের কারণে ঘটেছে বেশ কয়েকটি বড় বড় যুদ্ধ। ফলে প্রাণহানি ঘটেছে কোটি কোটি মানুষের।

এসব বিষয়কে ‘শর্টম্যান সিনড্রোম’ হিসেবে সম্প্রতি চিহ্নিত করেছেন যুক্তরাজ্যে বিখ্যাত অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। তারা জানিয়েছেন, এই সিনড্রোমের কারণে দেখা দিতে পারে উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যা। যার ফলে হৃদযন্ত্রের ক্রিয় বন্ধ হয়ে হঠাৎই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারেন আক্রান্ত ব্যক্তি। আর মাত্রাতিরিক্ত রাগের কারণে নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বহু বড় দুর্ঘটনাই ঘটিয়ে ফেলতে পারে মানুষ!

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1780 seconds.