• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:৪০:১৯
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:৩৫:৩৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

যুবদল থেকে আ.লীগে এসে আট বছরেই কোটিপতি নসিমন চালক রবি!

ছবি : সংগৃহীত

একসময় তিনি চালাতেন নসিমন। সাথে কাজ করতেন মাছের আড়তে। রাজনৈতিকভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) যুব সংগঠন যুবদলের সাথে। ৮ বছর আগে যোগ দেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে। এরপরই নানা অপকর্মে জড়িয়ে কোটিপতি হয়ে গেছেন রবিউল ইসলাম রবি নামের এই ব্যক্তি।

সহযোগীদের নিয়ে সম্প্রতি আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন তিনি। এরপর থেকে পালিয়ে আছেন রবি। যিনি কিছুদিন আগেও নাটোরের সিংড়া উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ওই হত্যার পর তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়।

জানা গেছে, নাটোরের সিংড়া থানায় রবির বিরুদ্ধে ওই নারী হত্যার ঘটনায় একটি মামলাসহ রয়েছে ৪টি মামলা। তার বিরুদ্ধে রয়েছে জমি দখল, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মে জড়িত থাকার অভিযোগ।

এই রবিউল ইসলাম রবি আগে নসিমন চালানোর পাশাপাশি মাছের আড়তে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ছিলেন চৌগ্রাম ইউনিয়ন যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক।

নানা কৌশলে ২০১২ সালে আওয়ামী লীগে যোগ দেন তিনি। এর পরই বেপরোয়া হয়ে উঠেন রবি। সহযোগীদের নিয়ে পুকুর-জমি দখল, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মে জড়িয়ে অঢেল অর্থবিত্ত উপার্জন করেন। হয়ে উঠেন গাড়ি-বাড়ির মালিক।

কথায় কথায় ক্ষুর দিয়ে মানুষকে আঘাত করায় রবি পরিচিত হয়ে উঠেন ‘ক্ষুর রবি’ নামে। তার বিরুদ্ধে চৌগ্রাম ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আজাহার আলীকে হত্যারও অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া ছাত্রলীগ নেতা সাঈদ আবুল বাসার শিপলুকে হত্যাচেষ্টায় জড়িত থাকারও অভিযোগ উঠেছে রবির বিরুদ্ধে।

এরপরও দলের কতিপয় অসাধু নেতাকে ‘ম্যানেজ’ করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলনে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদ পান রবি। এলাকায় তিনি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম ভোলার ক্যাডার হিসেবেই পরিচিত। তবে তার অপকর্মের দায় নিতে রাজি নন কেউই।

এ অভিযোগের বিষয়ে চৌগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম ভোলা বলেন, ‘এই দায়-দায়িত্ব আওয়ামী লীগ নেবে না এবং নেয়নি কোনো দিন। সে কিভাবে টাকা করেছে আমার তা জানা নেই।’

এদিকে দলীয় গঠনতন্ত্রের নিয়ম-কানুন মেনে রবিকে বহিস্কার করার জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগকে চিঠি দেয়া হয়েছে বলে জানান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলতাব হোসেন।

এদিকে রবিকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। তিনি বলেন, ‘দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।’

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0966 seconds.