• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২০:৩৭:৫০
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২১:৪৮:৫৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘তিস্তাসহ ৬টি নদীর পানির সমস্যা সমাধানে আগ্রহী ভারত’

ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ফাইল ছবি

ভারত তিস্তাসহ ছয়টি নদীর পানি বণ্টন সমস্যা সমাধানের আগ্রহ দেখিয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ২৯ সেপ্টেম্বর, মঙ্গলবার বাংলাদেশ-ভারত যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠকে ভারত এই আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

করোনা (কোভিড-১৯) মহামারীর কারণে ভার্চুয়াল মাধ্যমে দুই দেশের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জেসিসি’র বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এ বিষয়ে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, জেসিসি’র বৈঠকে অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এর মধ্যে তিস্তাসহ ছয় নদীর পানি বণ্টন নিয়েও আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এসব নদীর পানি বণ্টন সমস্যার সমাধান চাওয়া হয়। আর ভারতও এ সমস্যা সমাধানের আগ্রহ দেখিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সীমান্ত হত্যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে ভারতও একই মনোভাব প্রকাশ করেছে। দুই দেশের মধ্যে ফ্লাইট পরিচালনা করতে আলোচনা হয়েছে। এছাড়াও পেঁয়াজ রপ্তানির বিষয় নিয়ে বৈঠকে কথা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরো জানা গেছে, করোনা মহামারীর প্রেক্ষাপটে স্বাস্থ্য খাতে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিশেষত করোনা ভ্যাকসিনের সরবরাহ, বিতরণ এবং সহ-উৎপাদনের মতো বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে। ভবিষ্যতে সম্ভাব্য ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেয়ার বিষয়ে ভারতের আশ্বাসের প্রশংসা করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

আরো জানা গেছে, দুই দেশই সম্মিলিতভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার পঞ্চাশতম বার্ষিকী উদযাপন করতে সম্মত হয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর পর্যায়ে ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হবে। ঐতিহাসিক মুজিবনগর-কলকাতা সড়ক পুনরায় চালু করা।

এছাড়াও বিজয় এবং বন্ধুত্বের ৫০ বছর উপলক্ষে ওয়েবসাইট চালু, দুই পক্ষই বঙ্গবন্ধু ও গান্ধীকে নিয়ে ডিজিটাল জাদুঘর প্রতিষ্ঠায় একমত হয়েছে। ভারত সরকারও ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে একটি স্মারক স্ট্যাম্প বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শে তাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাবে বলেও জানা গেছে।

এই ভার্চুয়াল বৈঠকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর নিজ নিজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0727 seconds.