• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৫ অক্টোবর ২০২০ ১০:১২:৪৬
  • ১৫ অক্টোবর ২০২০ ১০:১২:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমনে থাইল্যান্ডে জরুরি অবস্থা

ছবি : সংগৃহীত

সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমনে জরুরি অবস্থা জারি করেছে থাইল্যান্ড। রাজধানী ব্যাংককে শান্তি এবং শৃঙ্খলা বজায় রাখতে জরুরি আদেশ জারি করা হয়েছে বলে বিবিসিসহ আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

গতকাল ১৪ অক্টোবর, বুধবার দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া বিবৃতিতে দেশটির পুলিশ জানায়, সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা বিশৃঙ্খলা উস্কে দিয়েছে।

তারা জানায়, বেআইনিভাবে বহু মানুষকে ব্যাংককে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সেখানে বিশাল সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।

শান্তি ও শৃঙ্খলা বজায় রাখতে জরুরি অবস্থা জারির বিকল্প ছিল না বলে দাবি করেছে সরকার।

স্থানীয় সময় আজ ১৫ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা থেকে জরুরি আদেশ কার্যকর হয়। এর পরপরই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভকারীদের হটিয়ে দেয় পুলিশ। এসময় তিন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয় বলে জানায় মানবাধিকার সংস্থাগুলো।

সরকারি আদেশ অনুযায়ী, একসঙ্গে ৪ জনের বেশি মানুষ গণজমায়েত করতে পারবে না। এছাড়া জাতীয় নিরপত্তা এবং স্থিতিশীলতা বিঘ্ন করে এমন খবর প্রকাশেও গণমাধ্যমের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

রাজা মহা ভাজিরালংকর্নের থাইল্যান্ডে ফেরার ঘটনাকে কেন্দ্র করে নতুন করে বুধবার থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। তারা গতকাল বুধবার ব্যাংককে রাজকীয় গাড়িবহর আটকে বিক্ষোভ দেখায়। এসময় তারা রাজতন্ত্রের সংস্কার এবং প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা'র পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দেয়।

গত জুলাই মাসে ছাত্রদের নেতৃত্বে দেশটিতে সরকারবিরোধী বিশাল বিক্ষোভ শুরু হয়। গত শনিবার বিক্ষোভে সরকারি হিসেবে ১৮ হাজার মানুষ সমবেত হয়েছিলেন। যদিও অংশগ্রহণকারীরা এর কয়েকগুণ মানুষ সেখানে ছিলেন বলে জানান।

দেশটিতে রাজা বা রাজ পরিবারের বিরুদ্ধাচরণ ‘গুরুতর অপরাধ’ হিসেবে বিবেচিত হয়। রাজার সমালোচনা করলে থাইল্যান্ডের আইনে দীর্ঘ কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0955 seconds.