• বিনোদন ডেস্ক
  • ২৪ অক্টোবর ২০২০ ১২:৪২:৫৩
  • ২৪ অক্টোবর ২০২০ ১২:৪২:৫৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ইচ্ছাপত্রে মৃত্যুর পর সৃষ্টি ধ্বংস করে দেয়ার আহ্বান কবীর সুমনের

ছবি : সংগৃহীত

মৃত্যুর পর যেন নিজের সমস্ত সৃষ্টি ধ্বংস করে দেয়া হয়—এমন ইচ্ছাপত্র (উইল) প্রকাশ করেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের খ্যাতনামা গীতিকার, সুরকার, গায়ক কবীর সুমন। গতকাল ২৩ অক্টোবর, শুক্রবার নিজের ফেসবুক পোস্টে নিজ প্যাডে লেখা ওই ইচ্ছাপত্র প্রকাশ করেন তিনি।

‘সকলের অবগতির জন্য’ শিরোনামে স্বহস্তে লেখা ইচ্ছাপত্রে সুমন আরো লিখেছেন, ‘আমার মৃতদেহ যেন দান করা হয় চিকিৎসাবিজ্ঞানের কাজে। কোনো স্মরণসভা, শোকসভা, প্রার্থনাসভা যেন না হয়। আমার সমস্ত পাণ্ডুলিপি, গান, রচনা, স্বরলিপি, রেকর্ডিং, হার্ড ডিস্ক, পেনড্রাইভ, লেখার খাতা, প্রিন্ট আউট যেন কলকাতা পুরসভার গাড়ি ডেকে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় সেগুলি ধ্বংস করার জন্য। আমার কোনো কিছু যেন আমার মৃত্যুর পর পড়ে না থাকে। আমার ব্যবহার করা সব যন্ত্র, বাজনা, সরঞ্জাম যেন ধ্বংস করা হয়। এর অন্যথা হবে আমার অপমান।’

নব্বইয়ের দশকের শুরুর দিকে সাড়াজাগানো অ্যালবাম ‘তোমাকে চাই’ দিয়ে আধুনিক বাংলা গানের জগতে আবির্ভাব হয় সুমন চট্টোপাধ্যায়ের। পরবর্তীতে তিনি বাংলাদেশের খ্যাতনামা শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সময় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে নাম নেন কবীর সুমন।

পরবর্তীতে রাজনীতিতেও যোগ দেন সুমন। পশ্চিমবঙ্গের সিঙ্গুর-নন্দীগ্রাম আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন তিনি। এরপর যোগ দেন মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেসে। দলটির মনোনয়নে লোকসভার যাদবপুর আসন থেকে সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হন সুমন।

যদিও পরে তৃণমূলের সঙ্গে তার সম্পর্কে চিড় ধরে, এরপরও ভারতের ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কড়া বিরোধী এই শিল্পী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর মমতার প্রতি সমর্থক অব্যাহত রাখেন।

তার ইচ্ছাপত্র প্রকাশের পর ভক্ত-অনুরাগীদের মধ্যে তা আলোড়ন তুলেছে। অনেকেই তার এমন সিদ্ধান্তে মর্মাহত। অনেকেই আবার শিল্পীর এই ইচ্ছাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

বাংলা/এসএ/

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.1047 seconds.