evaly
  • বিদেশ ডেস্ক
  • ১৯ নভেম্বর ২০২০ ১৭:০০:৫৮
  • ১৯ নভেম্বর ২০২০ ১৭:০২:৪১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তানে ৩৯ ব্যক্তিকে হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় সেনারা

ছবি : সংগৃহীত

অস্ট্রেলীয় সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে আফগানিস্তানে হত্যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। দেশটিতে ৩৯ নিরস্ত্র কারাবন্দি ও বেসামরিক লোককে ঠাণ্ডা মাথায় হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় সেনাবাহিনী। যুদ্ধের জন্য ‘রক্ত’ ঝরাতে নিরীহ বন্দিদের হত্যা করতে সেনাদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছিলেন জ্যেষ্ঠ কমান্ডাররা।

মানে ‘রক্তপাতে’ সেনাদের অভ্যস্ত করতে তাদের দিয়ে কাউকে ‘প্রথম হত্যা’ করানো হতো। ২০০৫ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে আফগানিস্তানে বিশেষ বাহিনীর আচরণ নিয়ে চলা তদন্ত প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। ১৯ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়, সম্ভাব্য ফৌজদারি বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে সাবেক ও বর্তমান ১৯ সেনার কথা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

আফগানিস্তানে যাদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল, তাদের অধিকাংশকে আগেই ধরে আনা হয়েছিল। নিহতদের মধ্যে বন্দি, কৃষক, শিশু ও স্থানীয় আফগান নাগরিকরা ছিলেন বলেও ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ার জেনারেল অ্যাঙ্গুস জন ক্যাম্পবেল বলেন, ২৩টি আলাদা ঘটনায় অস্ট্রেলীয় বিশেষ বাহিনীর সেনাদের হাতে ৩৯ জনকে বেআইনিভাবে হত্যার বিশ্বাসযোগ্য তথ্য তাদের কাছে আছে।

তিনি আরো বলেন, ‘যুদ্ধের উত্তাপের’ বাইরে গিয়ে এসব হত্যার ঘটনা ঘটে। সামরিক আচরণ ও পেশাগত মূল্যবোধ গুরুতর লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠে এসেছে। বেসামরিক নাগরিক ও কারাবন্দিদের বেআইনিভাবে হত্যাকাণ্ড কখনই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না বলেও জানান তিনি।

প্রতিবেদনের নির্দেশনা মতে ক্যাম্পবেল বলেন, অস্ট্রেলীয় সামরিক বাহিনীর বর্তমান ও সাবেক ১৯ সদস্যকে বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে যথেষ্ট প্রমাণ আছে কিনা, তা নিশ্চিত হতে তাদের বিশেষ তদন্তকারীদের হাতে সোপর্দ করা হবে।

নিউ সাউথ ওয়েলসের বিচারক পল ব্রেরেটন চার বছর ধরে এই তদন্ত পরিচালনা করেন। ২০০৩ ও ২০১৬ সালের মধ্যে আফগানিস্তানের যুদ্ধাপরাধ সংঘটনের অভিযোগ ওঠার পর তদন্তে প্রতিরক্ষা মহাপরিদর্শক তাকে নিয়োগ দেন। তদন্তের জন্য ২০ হাজার নথি ও ২৫ হাজার ছবি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। আর শপথের ভিত্তিতে ৪২৩ প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে। সফল বিচার করা না গেলেও ভুক্তভোগীদের ক্ষতিপূরণ দিতে প্রতিবেদনে সুপারিশ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০০২ সাল থেকে তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের অংশ হিসেবে আফগানিস্তানে অস্ট্রেলিয়ান সেনারা অবস্থান করছেন। দেশটিতে এখনো দেড় হাজার অস্ট্রেলিয়ান সেনা রয়েছে।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

Page rendered in: 0.0928 seconds.