• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৩ নভেম্বর ২০২০ ১৮:৪২:৫১
  • ২৩ নভেম্বর ২০২০ ১৮:৪২:৫১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

শীতকালীন সবজি বাঁধাকপির যত গুণ

ছবি : সংগৃহীত

শীতকালের সবজি বাঁধাকপি। কমবেশি সকলেই বাঁধাকপির তরকারি খেয়ে থাকেন। শুধু সুস্বাদু নয়, বাঁধাকপির নানা গুণও রয়েছে। এতে বিভিন্ন ধরনের খনিজ ও ভিটামিনে ভরপুর। যা মানবদেহে ছোট-বড় সব ধরনের রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে থাকে।

বাঁধাকপিতে ম্যাঙ্গানিজ, ডায়াটারি ফাইবার, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ভিটামিন-সি, ভিটামিন-বি৬, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-কে এবং ভিটামিন-ই প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। এভিডেন্স বেসড কমপ্লিমেনটারি অ্যান্ড অলটারনেটিভ মেডিসিনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে। খবর নিউজ এইট্টিনের।

বাঁধাকপির উপকারী দিকগুলো তুলে ধরা হলো-

১. বাঁধাকপিতে প্রচুর পরিমাণে সালপোরফেন’র মতো অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান রয়েছে। যা শরীরে প্রদাহ বা ইনফ্ল্যামেশনের মাত্রা কমায়। শরীরে ইনফ্ল্যামেশনের মাত্রা বৃদ্ধি পেলে একদিকে যেমন দেহের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তেমনি ঝুঁকি বাড়ে ক্যান্সারের।

২. বাঁধাকপিতে প্রচুর ফাইবার রয়েছে। তাই এটি একদিকে যেমন কনস্টিপেশন কমায় অন্যদিকে বাওয়েল মুভমেন্ট উন্নত করে। একাধিক পেটের রোগের সমস্যারও মোকাবিলা করে।

৩. টানা ৬০ দিন বাঁধাকপি খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা স্বাভাবিক মাত্রায় চলে আসে। সেই সঙ্গে রেনাল ফাংশনের উন্নতি ঘটে এবং ওজন কমতে শুরু করে। বাঁধাকপিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট এবং হাইপার-গ্লাইসেমিক উপাদান রয়েছে, যা ডায়াবিটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে।

৪. বাঁধাকপি শরীরে ভিটামিনের ঘাটতি দূর করে। অর্ধেক কাপ সেদ্ধ বাঁধাকপিতে যে পরিমাণ ভিটামিন-সি থাকে, তা পুরো দিনের চাহিদার প্রায় ৪৭ শতাংশ পূরণ করে। আর ভিটামিন-কে’র চাহিদা পূরণ করে প্রায় ১০০ শতাংশ।

৫. বাঁধাকপিতে উপস্থিত ফোটোনিউট্রিয়েন্টস, যেমন পলিফেনল এবং গ্লুকোসিনোলেট শরীরে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদানের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে হার্টের রোগ কমানোর পাশাপাশি ক্যান্সার, অ্যালঝাইমারস এবং ম্যাকিউলার ডিজেনারেশনের মতো রোগের সম্ভাবনা দূর হয়।

৬. বাঁধাকপিতে প্রচুর মাত্রায় ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম রয়েছে। যা বোন ডেনসিটি বাড়াতে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। একই সঙ্গে অস্টিওপোরোসিস’র মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও কমে।

৭. বাঁধাকপিতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। যা শরীরে জমে থাকা অতিরিক্ত মেদ ঝড়িয়ে ফেলে। অন্যদিকে বাঁধাকপিতে রয়েছে একেবারে কম মাত্রায় ক্যালরি এবং কার্বোহাইড্রেট। ফলে এটি খেলে ওজন বৃদ্ধির কোনো সম্ভাবনাই থাকে না।

৮. এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-কে রয়েছে। ফলে নিয়মিত বাঁধাকপি খেলে ব্রেনের শক্তি বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে নার্ভের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে। অ্যালঝাইমার্সসহ একাধিক ব্রেন ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস পায়।

৯. বাঁধাকপিতে বিটা-ক্যারোটিন রয়েছে। যা মানুষের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটায়।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বাঁধাপকি গুণ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0652 seconds.