• ফিচার ডেস্ক
  • ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:১৩:২১
  • ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:১৩:২১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

টেকনোর ৬৪ মেগাপিক্সেলের ‘ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ার’ বাজারে

ছবি : সংগৃহীত

টেকনো নিয়ে এসেছে দেশের বাজারে ফ্ল্যাগশিপ-লেভেলের ৬৪ মেগাপিক্সেল (এমপি) আলট্রা কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা ও প্রথম পাইওনিয়ারিং ৪৮ মেগাপিক্সেল (এমপি) ডুয়েল ফ্রন্ট ক্যামেরা ফোন ‘টেকনো ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ার’। ‘নেক্সট লেভেল ক্যামেরা ইভোলিউশন’ থিমকে সামনে নিয়ে শুক্রবার ৪ ডিসেম্বর ২০২০ টেকনোর প্রথম অনলাইন লঞ্চ অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ারের প্রধান আকর্ষণীয় ফিচার হলো এর ইন্ডাস্ট্রি-বেস্ট ৬৪ এমপি কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যাতে একটি ৬৪ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরা, ৮-মেগাপিক্সেল ১০৫-ডিগ্রি আল্ট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা, ২-মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর এবং পেন্টা-এলইডি ফ্ল্যাশসহ ২-মেগাপিক্সেল লো-লাইট সেন্সর রয়েছে। এর ডুয়েল ফ্রন্ট ক্যামেরা সেটআপে একটি ৪৮-মেগাপিক্সেল প্রধান সেন্সর এবং একটি ৮-মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি শ্যুটার আছে। ফোনটিতে ডুয়েল ফ্রন্ট ফ্ল্যাশ সুবিধাও রয়েছে।

এ ছাড়াও ব্যবহারকারীদের উন্নত ও বহুমাত্রিক শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা দিতে টেকনো ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ারে বিশ্বের এক্সক্লুসিভ ট্রেডমার্ক টাইভস প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে যাতে টেকনোর এআই ভিশন অপ্টিমাইজেশন সলিউশনও রয়েছে। সর্বোপরি, এ স্মার্টফোনটি থাকা সুপার-পাওয়ারফুল ক্যামেরা ফাংশন মোবাইল শিল্পে হট-ট্রেন্ডের নজির স্থাপন করবে।

সুপার হাইব্রিড ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (এইচআইএস) এবং ইআইএস+এআইএসের মতো অনন্য ভিডিও শ্যুটিং ফাংশন রয়েছে টেকনো ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ারে যা দিয়ে উন্নত ফ্রেম রেট ভিডিও শ্যুট করা যাবে। সেসঙ্গে, টেকনো ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ার দিয়ে ৯৬০ ফ্রেম সুপার স্লো-মোশন শ্যুট এবং ৪কে আনইমাজিনেবল হাই ডেফিনেশন সিনেমা লেবেলের ভিডিও ধারণে করতে পারবে।

নতুন টেকনো ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ার ফোনটিতে ৬.৯ ইঞ্চির এফএইচডি ডুয়েল ডট-ইন ডিসপ্লে রয়েছে। যাতে ৯০হার্জ রিফ্রেশ রেট, ২০:৫:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিও এবং এইচডিআর১০+ সমর্থিত ফ্ল্যাশ রয়েছে। স্ক্রিনের বাম কোণের পিল-আকৃতির হোল-পাঞ্চ কাট-আউট ব্যবহারকারীকে সত্যকারের লাক্সারি অনুভূতি দেবে। ক্যামন ১৬ প্রিমিয়ারের আরেকটি মূল ফিচার হলো- এর ৮জিবি র্যাম ও ১২৮ জিবি রমের সমন্বয়ে হেলিও জি৯০টি অক্টা-কোর গেমিং প্রসেসর। যার মাধ্যমে ফটোগ্রাফি, নেটওয়ার্কিং, গেমিং এবং প্রসেসিংয়ের সামগ্রিক পারফরম্যান্স ১১ ভাগ বাড়ানো হয়েছে।

ফোনটিতে থাকা ৪৫০০ এমএএইচ বিশাল ব্যাটারি ব্যবহারকারীর প্রতিদিনের চাহিদা সহজেই মেটাতে পারবে। সেসঙ্গে এর ৩৩ ওয়াট নিরাপদ ফাস্ট চার্জিং ক্ষমতাসহ নতুন আপগ্রেডেড ব্যাটারিটি মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে ফোনের ৭০ ভাগ ব্যাটারি চার্জ করতে পারে।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0716 seconds.