• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ ১৪:২৩:১৫
  • ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ ১৪:২৩:১৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

চুরির ৮ দিন পর উদ্ধার হলো শিশু, নারী গ্রেপ্তার

ছবি : সংগৃহীত

নাটোরে হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়ার আটদিন পর শিশু তাইয়্যিবাকে (২ মাস) উদ্ধার করেছে পুলিশ। শিশুটিকে তার মা-বাবার কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় শাকিলা নামের এক নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি শিশুটিকে চুরি করেছিলেন।

পুলিশের কাছে তাইয়্যিবাকে চুরির কথা স্বীকারের করেছেন শাকিলা। ৩১ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানার কালিকাপুর গ্রাম থেকে তাইয়্যিবাকে উদ্ধার করে পুলিশ। নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশ জানায়, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তের অংশ হিসেবে গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও গুরুদাসপুর থানার সব সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়। সেই তথ্য এবং আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে পাওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করে অভিযান চালায় পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বড়াইগ্রাম থানার কালিকাপুর গ্রাম থেকে তাইয়্যিবাকে উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে লিটন কুমার সাহা জানান, যে নারী তাইয়্যিবাকে চুরি করেন, তারও একটা সন্তান জন্ম নেয় দুমাস আগে। কিন্তু সন্তান হওয়া নিয়ে স্বামীর অশান্তির কারণে তিনি শিশুটিকে আরেক পরিবারে দত্তক দেন। কিন্তু পরে সন্তান না থাকা নিয়ে আবারো শাকিলার স্বামী তাকে চাপ দেয়। এ কারণেই তিনি হাসপাতালে গিয়ে তাইয়্যিবাকে চুরি করেন।

তিনি আরো বলেন, পুলিশের কাছে বাচ্চা চুরির কথা স্বীকারের পর শাকিলাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে নাটোর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, গত ২৩ ডিসেম্বর মা সীমা খাতুন নিজের চিকিৎসার জন্য তাইয়্যিবাকে সঙ্গে নিয়ে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। সেদিন অজ্ঞাত এক নারী কৌশলে শিশুটিকে কোলে নিয়ে তার মাকে হাসপাতালের আউটডোরে যেতে বলে। সীমা খাতুন সরল বিশ্বাসে আউটডোরে গেলে ওই নারী তাইয়্যিবাকে নিয়ে চলে যান। পরে সন্তানকে আর খুঁজে পাননি সীমা। এ ঘটনায় ওই দিনই তাইয়্যিবার বাবা তফিজ উদ্দিন গুরুদাসপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0862 seconds.